মঙ্গলবার, জুলাই ৭, ২০ ২০
লেখালেখি ডেস্ক
২৭ জুন ২০ ২০
৯:১৬ অপরাহ্ণ
করোনা মহামারীর তাবায় নিস্তব্ধ পুরো বিশ্ব:  এইচ.এম.কাওছার আহমেদ 

করোনার প্রাদুর্ভাবে নিস্তব্ধ পুরো বিশ্ব। ভয়ের কারণ নেই, মূলত এসব আমাদের কৃতকর্মের ফল।যদি আপনার আমার নাম করোনা মহামারীর লিস্টে লিপিবদ্ধ হয়ে যায় তাহলে বাচার উপায় নেই।প্রতিটি মানুষের জন্য মৃত্যু অবদারিত,
আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে ঘোষণা দিয়েছেন -"কুল্লু নাফসিন যাইক্বাতুল মাউত” প্রত্যেক প্রাণী মৃত্যুর আস্বাদন গ্রহণ করতে হবে।( সুরা: আলে ইমরান,) আয়াত- ১৮৫
 তারপরে ও  উচিত প্রতিটি মানুষের সচেতনতা ও মহান রবের নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করা।কারণ আল্লাহ তায়ালা যুগে যুগে আদম নবী (আ:)থেকে শুরু করে এই পৃথিবীতে যে সকল নবী রাসূলগন এসেছেন সবাই কোন না কোন পরীক্ষা সম্মুখীন হতে হয়েছে এটাই আল্লাহ তায়ালা'র পক্ষ থেকে নেওয়া পরীক্ষা। আর সেই সাথে সকল পয়গাম্বরগনের কৌম বা জাতি পৃথিবীতে যখনই সীমা লঙ্ঘন করেছেন ঠিক তখনই মহান রাব্বুল আলামিনের পক্ষ থেকে দেওয়া বড় ধরনের আজাব,গজব ও মহামারীর মতো শাস্তি  দিয়ে পরীক্ষা করেছেন। বান্দার কৃতকর্মের কারনেই এসব, বর্তমান করোনাকালীন জাতির এ দুসময়ে ও মানুষ মানুষের সাথে প্রতিনিয়ত প্রতারণা করছে অসহায় মানুষের হক লুঠে খাচ্ছে বিশেষ করে রাষ্টীয় যে সম্পদ পাবলীকের জন্য দেওয়া হচ্ছে চাল,গম,আটা সেগুলো ও কিছু মূর্খ ইউনিয়ন সদস্য, চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক দলের নেতারা জোর দবস্তীর মাধ্যমে লুটে খাচ্ছে ক্ষমতার অপব্যবহার করে,ধীক্ষার জানাই এসব অনৈতিক কার্য কলাপীদেরকে, আল্লাহ তায়ালা যেন এদের কে হেদায়েত দান করেন।কেন আল্লাহ তারঁ বান্দাদের মহামারী দিয়ে পরীক্ষা করেন যখই বান্দা সীমা লঙ্ঘন করে,মানুষের সাথে ওয়াদা করে তা ভঙ্গ করে। সেটা কোন মুমিম ব্যক্তির পক্ষে সম্ভব নয়। 
আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে বলেছেন-
" প্রতিজ্ঞা পূরণ কর,কেননা প্রতিজ্ঞা সম্পর্কে তোমরা জিজ্ঞাসীত হবে।
সুরাঃআল-ইসরাঃ৩৪
অতঃপর সমাজ থেকে যখন আমানতদারীতা উঠে যাবে তখনই দুনিয়াতে গজব আসবে নিশঃন্দেহে আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআন বলেছেন-"নিশ্চয় আল্লাহ তোমাদের আদেশ দেন যে তোমরা প্রাপ্য আমানতগুলো যথাযথ মালিকের নিকট পৌঁছে দাও "।
সূরাঃআন-নিসাঃ৫৮
বর্তমান এই কঠিন সংকটময় সময়ে ও মানুষ নামের কিছু হায়ানার দল মানুষ কে গোপনে হত্যা করে নদীতে বাসিয়ে দেয়,তালাশ করে দেখা যায় একজন অসৎ চরিত্রহীন ব্যক্তি ব্যতীত এই জগন্যতম হত্যা করতে পারে না। তাই রাসূল (সাঃ) চরিত্র সম্পর্কে বলেন -" তোমাদের মধ্যে সে পূর্ণাঙ্গ ঈমানদার যার চরিত্র সর্বোত্তম।
ইমাম হাকীম,আবু আব্দুল্লাহ,হাদীস নং ১
কেন আল্লাহ তাঁর বান্দাদের গজব দ্বারা পরীক্ষা করেন -পবিত্র কুরআন বলছে-
যাদের উপর কোন বিপদ নিপতিত হলে তারা বলে,নিশ্চয়ই আমরা আল্লাহরই জন্য এবং নিশ্চয়ই আমরা তাঁরই দিকে প্রত্যাবর্তনকারী।
সুরাঃবাকারা-১৫৫

তাদের ওপর রোগব্যাধি, অভাব, দারিদ্র্য, ক্ষুধা চাপিয়ে দিয়েছিলাম, যেন তারা আমার কাছে নম্রতাসহ নতি স্বীকার করে।
সুরা ইয়াসিন: আয়াত-২৮-২৯ 
তারপর (তাদের এই অবিচারমূলক জুলুম কার্য করার পর) তাদের বিরুদ্ধে আমি আকাশ থেকে কোনো সেনাদল পাঠাইনি। পাঠানোর কোনো প্রয়োজন‌ও আমার ছিল না। শুধু একটা বিস্ফোরণের শব্দ হলো, আর সহসা তারা সব নিস্তব্ধ হয়ে গেল (মৃত লাশ হয়ে গেল)।
সুরা আ’রাফ: আয়াত-১৩৩ 
বিশ্বের এই ক্রান্তিলগ্নে প্রতিটি দেশের উচিত  অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানো এবং মহান রবের নিকট তাওবা করে সঠীক পথে ফিরে আসা। 

কারোনাকালীন জাতির এ দু-সময়ে প্রতিটি রাষ্ট্রের করণীয়ঃ
১.খাদ্য মজুদ না রেখে জনগনের পাশে দাড়ানো যাতে কোন মানুষ অনাহারে মারা না যায়।
২.চিকিৎসা ব্যবস্হার দিকে কঠোর নজরদারী ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা,যাতে চিকিৎসার অভাবে কোন মানুষ মারা না যায়
৩.দূর্ণীতি ও দালালদের বিরুদ্ধে কঠোর প্রদেক্ষপ গ্রহণ করা প্রতিনিয়ত দালাল চক্রের বাহিনী অসহায় মানুষদের নানাভাবে কষ্ট দিচ্ছে এবং তাদের অর্থ কেড়ে নিচ্ছে।
৪.করোনাকালীন এ-দুসময়ে ক্ষমতার অপব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর নজরদারী বাড়ানো 
৫.দর্ষনকারী-ব্যবচারীদের বিরুদ্ধে কোরআনের আইন বাস্তব-বায়ন করা।
** বিশ্বের এই ক্রান্তিলগ্নে বেশি বেশি করে আল্লাহর নিকট তাওবা করা এবং বিশেষ দুয়া পাঠ করা।
" আল্লাহুম্মা ইন্নী আউজুবিকা মিনাল বারসি ওয়াল জুনুনি ওয়াল জুযামি ওয়ামিন ছাইয়্যি ইল আসকাম"
অর্থঃহে আল্লাহ ! অবশ্যই অামি তোমার নিকট ধবল,উম্মাদ,কুষ্ঠরোগ এবং সকল প্রকার কঠিন ব্যাধি থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করছি।(আবু দাউদ, তিরমিজি) 

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়ঃ
করোনা ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকুন ইহা আল্লাহর তা'য়ালার পক্ষ থেকে একটি গজব।এবং বেশি বেশি করে তাওবা ইস্তেগফার করুন।সর্বদা পরিষ্কার -পরিচ্ছন্ন থাকুন।কারন পরিষ্কার -পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ।সর্ববস্হায় পাক-পবিত্র থাকুন ভরসা রাখুন আল্লাহর উপর এবং পাঁচ ওয়াক্ত সালাত আদায় করুন।ধুমপানকারীদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখুন।
মহান আল্লাহ তায়ালা যেন আমাদের সবাই কে   সবসময়ই সদা সর্বদা সৎপথে থাকার তৌফিক দান করেন বিশ্বের সকল মুমিন-মুসলমানগন কে হেফাজত করুন যারা মহামারীয়ে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন তাদেরকে জান্নাতুল ফেরদৌসের উচ্চ মাকাম দান করেন ও যারা আক্রান্ত আছেন তাদেরকে শিফা দান করেন আমিন। 

লেখক শিক্ষার্থীঃসিলেট সরকারি আলিয়া মাদরাসা।

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য