রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ওসমানীনগরে গাড়ি চাপা দিয়ে অধ্যক্ষ হত্যা, আরেক আসামী গ্রেফতার



শাহীন চৌধুরী, ওসমানীনগর:: সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার বুরুঙ্গা শেখ ফজিলাতুন্নেছা ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ শায়খুল ইসলামকে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যা মামলায় মাদ্রাসার ভাইস প্রিন্সিপাল আহমদ আলী হেলালীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলার গোয়ালাবাজার সিএনজি স্ট্যান্ড থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মমিনুল ইসলাম (পিপিএম) আসামী গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অধ্যক্ষ শায়খুল ইসলামকে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যার ঘটনায় অধ্যক্ষের স্ত্রী বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করলে গত ২৫ ফেব্রুয়ারী মামলার প্রধান আসামী ঐ মাদ্রাসার বাংলা বিভাগের প্রভাষক লুৎফুর রহমানকে গ্রেফতার করা হলে তার দেওয়া জবানবন্দির ভিত্তিতে মাদ্রাসার ভাইস প্রিন্সিপাল আহমদ আলী হেলালীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তাকে শনিবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারী সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে বুরুঙ্গা শেখ ফজিলাতুন্নেছা ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ শায়খুল ইসলাম মাদরাসায় যাচ্ছিলেন। প্রাইভেট কার নিয়ে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা একই মাদরাসার বাংলার প্রভাষক লুৎফুর রহমান ওরফে আজাদ নিজ প্রাইভেট কার দিয়ে অধ্যক্ষ শায়খুল ইসলামকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই শায়খুল ইসলাম নিহত হন।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে গত ১৮ ফেব্রুয়ারী নিহতের স্ত্রী দিলবাহার তালুকদার লিপি (৩৭) বাদী হয়ে শেখ ফজিলাতুন্নেছা ফাজিল মাদরাসার বাংলা বিভাগের প্রভাষক ও দক্ষিণ সুরমা উপজেলার ফরিদপুর গ্রামের মৃত তাহির আলীর ছেলে লুৎফুর রহমান ওরফে আজাদ(৪৪)কে প্রধান আসামী ও অজ্ঞাতনাম আরো ৫/৬ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন, মামলা নং ১৩।

হত্যা মামলার প্রেক্ষিতে গত ২৫ ফেব্রুয়ারী ভোরে অভিযুক্ত লুৎফুরকে সিলেট শহর থেকে ওসমানীনগর থানা পুলিশ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর লূৎফুর রহমান সিলেটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুলেখা দে’র আদালতে ফৌজদারী দন্ড বিধির ১৬৪ ধারায় হত্যার সাথে জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।