রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিশ্বনাথে ২ বৃদ্ধাকে সহযোগীতা করতে গিয়ে ব্যাংক ম্যানেজার কর্তৃক সাংবাদিক লাঞ্ছিত



বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথে বয়স্কভাতার টাকা উত্তোলনে ব্যাংক যাওয়া দুই বৃদ্ধাকে সহযোগীতা করতে গিয়ে ব্যাংক ম্যানেজার কর্তৃক এক সাংবাদিক লাঞ্ছিত হয়েছেন। গত মঙ্গলবার উপজেলা সদরের নতুন বাজারস্থ জনতা ব্যাংক শাখায়।

এঘটনায় ব্যাংকের ম্যানেজার মাধব রাম পালের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার (৪এপ্রিল) দৈনিক ইনকিলাব ও সিলেটের বানী পত্রিকার বিশ্বনাথ প্রতিনিধি আব্দুস সালাম বাংলাদেশ ব্যাংক সিলেটের নির্বাহী পরিচালক (জিএম) ও জনতা ব্যাংক প্রিন্সিপাল অফিসের কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছেন।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন- গত ২ এপ্রিল মঙ্গলবার জনতা ব্যাংকের বিশ্বনাথ নতুন বাজারস্থ শাখায় ভাতা নিতে আসেন বয়স্ক পুরুষ-মহিলারা। তাদের মধ্যে লামাকাজি ইউনিয়নের মির্জারগাঁও গ্রামে ১১০ বছর বয়সী বৃদ্ধা তাজিবুন বেগম ও ৮৫ বছর বয়সী রহিমা বেগম দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাড়িয়ে থাকাবস্থায় অজ্ঞান হয়ে পড়লে সাংবাদিক আব্দুস সালাম তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন এবং তিনি লোকজনদের সহযোগিতায় ওই দুই জন বৃদ্ধা মহিলাকে কোলে নিয়ে মার্কেটের ২য় তলায় অবস্থিত ব্যাংকে প্রবেশ করেন।

এরপর ব্যাংক ম্যানেজারের সাথে সাংবাদিক আব্দুস সালাম মানবিক বিবেচনায় বৃদ্ধা মহিলাদের ভাতা দেয়ার সুপারিশ করেন। কিন্ত ম্যানেজার তার সাথে অশালীন আচরণ করেন এবং বৃদ্ধ মহিলাদের উদ্দেশ্যে করে দাপটের সাথে তিনি বলেন- ‘২/৩ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়ে ভাতা নিতে না পারলে ভাতায় নাম দেন কেন? আমি তাদের (সাংবাদিকদের) খাই না এবং তাদের চাকুরিও করিনা যে তাদের কথা শুনতে হবে’। এক পর্যায়ে সাংবাদিক আব্দুস সালাম অপমানিত হয়ে ব্যাংক থেকে চলে আসেন।

সাংবাদিক আব্দুস সালাম বলেন- বয়স্ক ভাতাপ্রাপ্ত অসহায় নিরিহ পুরুষ মহিলারা ব্যাংক থেকে ভাতার টাকা নিতে এসে দীর্ঘক্ষণ লাইলে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। যে কারনে বয়স্ক লোকজনদের অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। ম্যানেজার মাধব রাম পাল এই শাখায় যোগদানের পর থেকে তিনি শুধু বয়স্ক ভাতা নিতে আসা লোকজনদের সাথেই নয়, সাধারণ গ্রাহকদের সাথেও অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এমন অনেক অভিযোগ রয়েছে তার (ম্যানেজার) বিরুদ্ধে।

এমনকি প্রবাসিরা রেমিটেন্স পাঠানো সহ বিভিন্ন কারনে তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বিরক্ত হয়ে ফোন রেখে দেন। একজন ব্যাংক কর্মকর্তার এমন আচরণে ক্ষুব্ধ সচেতন মহল।
জনতা ব্যাংক প্রিন্সিপাল অফিসের জেনারেল ম্যানেজার আসাদুজ্জামান অভিযোগ পত্রটি পেয়ে এমন আচরণের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন। বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা এবং যাতে ভাতা ভোগী লোকজন সহজে ভাতা পেতে পারেন সেই প্রদক্ষেপ গ্রহনের আশ্বাস প্রদান করেন।