রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আতিয়া মহলের জঙ্গি হামলায় আহত শিরিনের শয্যাপাশে জেদান আল মুসা



ডেস্ক নিউজ:: আতিয়া মহল জঙ্গি আস্তনায় বোমা বিস্ফোরণে আহত মো. শিরিন মিয়াকে দেখতে আজ রাত বুধবার ৮টায় ওসমানী হাসপাতালে যান অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা।

এসময় তিনি শিরিন মিয়ার চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন এবং তার আশু রোগ মুক্তি কামনা করেন। এসময় তিনি শিরিনের চিকিৎসার পর তাকে ব্যবসার জন্য সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন-দৈনিক সবুজ সিলেটের ফটো সাংবাদিক আজমল আলি, ব্যবসায়ী কাউছার আহমদ, আব্দুল মালিক, আরিফ খান, সাদ্দাম, ওসমানি মেডিকেল ক্যাম্পের আনসার কমান্ডার (পিছি)নাছির আহমদ প্রমুখ।

‘সিলেটে টাকার চিকিৎসা বন্ধ শিরিনের’ উক্ত শিরোনামে বুধবার সকালে সিলেট প্রতিদিনে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ পেয়ে রাতেই ওসমানী হাসপাতালে ছুটে যান জেদান আল মুসা।

উল্লেখ্য, দুই বছর ধরে চিকিৎসা না পাওয়ায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছেন আতিয়া মহল জঙ্গি আস্তনায় বোমা বিস্ফোরণে আহত মো. শিরিন মিয়া। তিনি সুনামগঞ্জ জেলার দিরাইয় উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামের আব্দুল গনির পুত্র।

শিরিন মিয়া জানান, দক্ষিণ সুরমার শিববাড়ী ড্রাইভার রেস্টুরেন্টে কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলাম। মানুষের জটলা দেখে আতিয়া মহলের দিকে যাই। কিছু দূর যাওয়ার পরই বোমা বিস্ফোরণ ঘটে। আমার দুই পায়ে অনেকগুলো স্প্লিন্টার ঢোকে। দীর্ঘদিন চিকিৎসা শেষে কিছুটা ভালো হলেও কাজ করতে পারি না। আমার চাকরিও চলে যায়। কিছুদিন পর আমার স্ত্রীও সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যায়।

তিনি আরো জানান, কিছুদিন পর পর ক্ষতস্থানে ব্যাথা হয়। হাসপাতালে আসতে হয়। ডাক্তাররা অপারেশন করার পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু টাকার অভাবে অপারেশন করাতে পারছি না। দীর্ঘদিন ধরে অনেক গণ মাধ্যম কর্মি ও গণ্যমান্য ব্যক্তি ও বিভিন্ন সংগঠন আর্থিকভাবে সহায়তা করেছে। কিন্তু তা পর্যাপ্ত নয়। পরিবারের পক্ষেও সব খরচ মেটানো সম্ভব না। আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রশাসনের সহযোগিতা চাই, আবার সুস্থ হয়ে কাজ করে খেতে চাই।