বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

উপজেলা নির্বাচন: বালাগঞ্জে রাত পোহালেই ভোটের লড়াই



শাহীন চৌধুরী, ওসমানীনগর ::  রাত পোহালেই বালাগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, এরই মধ্যে শেষ হয়েছে প্রার্থীদের সকল প্রচার প্রচারণা। উপজেলার সর্বত্র বিরাজ করছে এখন নিরবতা। আগামীকাল ভাগ্য নির্ধারণ হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের।
বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এবার প্রার্থীতা করছেন চেয়ারম্যান পদে ৪জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জনসহ মোট ১২জন ।
এ উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ৮০,৬,৩৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৪০,২৩৯ জন এবং মহিলা ভোটার ৪০,৩৯৯ জন। ভোট গ্রহন হবে ৩৪ টি কেন্দ্রে ।
সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনকালে ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৪ প্রার্থী থাকলেও আওয়ামীলীগ মনোনীত (নৌকা) প্রতিক নিয়ে সাবেক চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর, স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঘোড়া) প্রতিক নিয়ে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপির সদ্য বহিস্কৃত নেতা আবদাল মিয়া ও যুক্তরাজ্য প্রবাসী বিএনপির সদ্য বহিস্কৃত নেতা মুহাম্মদ গোলাম রব্বানী (আনারস) প্রতীক নিয়ে রয়েছেন মূল আলোচনায় । এর মধ্যে আওয়ীমীলীগের একক প্রার্থী থাকায় মোস্তাকুর রহমান মফুর এগিয়ে রয়েছেন বলে ধারণা করছেন সচেতন মহলের লোকজন।
অন্যদিকে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় আবদাল মিয়া ও গোলাম রব্বানীকে দল থেকে বহিস্কার করেছে বিএনপি যার কারণে স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীদের একটি অংশ নির্বাচনে নিরব দর্শকের ভূমিকায় থাকতে দেখা যায়।  আরেকটি অংশ দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া ও যুক্তরাজ্য প্রবাসী মুহাম্মদ গোলাম রব্বানীর পক্ষে মাঠে কাজ করতে দেখা গেছে।
অন্যদিকে নির্বাচনে জাতীয় পার্টির (লাঙ্গল) প্রতীক নিয়ে প্রার্থী হিসেবে প্রচারনা চালিয়েছেন আবদুর রহিম।
এছাড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন- টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী, বাল্ব প্রতীকে সুজিত চন্দ্র গুপ্ত বাচ্চু, চশমা প্রতীক নিয়ে যুবলীগ নেতা সামছুদ্দিন সামছ, তালা প্রতীকে ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাক উদ্দিন আহমদ, মাইক প্রতীক নিয়ে শেখ. মো. নুরে আলম।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কলস প্রতীকে সুক্তি রানী দাশ, ফুটবল প্রতীকে সেবু আক্তার মনি, পদ্মফুল প্রতীকে কুলসুমা বেগম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।