শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিক্ষার্থীদের কল্যানে যারা কাজ করেন তাদেরকে স্বাগত জানানো উচিত: প্রফেসর মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ



সিলেট শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ আব্দুল কুদ্দছ বলেছেন, শিক্ষার্থীদের কল্যানে গতানুগতিক চিন্তা চেতনার বাইরে যারা কাজ করেন তাদেরকে স্বাগত জানানো উচিত।

কারণ যুগের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় অতীতের পথে হাটলে চলবেনা। একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা গ্রহণের মাধ্যমে নতুন চিন্তা নিয়ে এগুতে হবে। সরকারও সে রকম নতুন কর্মসূচি ও চিন্তা নিয়ে এগুচ্ছে।

যার ফলে শিক্ষা ব্যবস্থায় আমুর পরিবর্তন এসেছে। বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া রোধ করতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী সংস্থাগুলোকেও কাজ করা উচিত। সে ক্ষেত্রে চ্যারেটি সংস্থা এডুকেশন গাইড এর কার্যক্রম প্রশংসার দাবী রাখে।
শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান গত ৩১ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এডুকেশন গাইড ইউএসএ’র উদ্যোগে সিলেট নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে আয়োজিত ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

এডুকেশন গাইড ইউএসএ’র প্রতিষ্টাতা যোবায়ের আহমদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সীমান্তিক আইডিয়াল টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রউফ তাপাদার, সিলেট বিভাগীয় ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুল বাতিন ফয়সল, রসময় মোমেরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেলিম উদ্দিন, আল এমদাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জ্যোৎ¯œাময় আচার্য্য।

সাংবাদিক মো. ফয়ছল আলমের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন লিডিং ইউনিভার্সিটির ইংরেজি প্রভাষক তাসনিয়া মিজান চৌধুরী, সাস্ট ক্যারিয়ার ক্লাবের মেম্বার মানছুরা মেহরীন, দি নিউ নেশন সিলেট ব্যুরো প্রধান এস.এ শফি, এনআরবি ব্যাংক কর্মকর্তা রইছ উদ্দিন, টিচার্স ট্রেনিং কলেজের শিক্ষক জয়নাল আবেদীন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম, অভিভাবক শিক্ষক জাহাঙ্গীর তালুকদার, রসময় মোমেরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ঐশিতা চক্রবর্তী, ফারজানা আক্তার।

নলেজ হারবার কলেজের শিক্ষক মাওলানা উসমান গণি’র পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সূচিত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এডুকেশন গাইড ইউএসএ’র প্রতিষ্টাতা যোবায়ের আহমদ। অনুষ্ঠানে এডুকেশন গাইড ইউএসএ কর্তৃক গৃহীত কার্যক্রম বাস্তবায়নে সহযোগিতা করায় শিক্ষার্থী, শিক্ষক, প্রশিক্ষক এবং প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথিবৃন্দকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
সিলেট শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ আব্দুল কুদ্দছ বলেন, সুন্দর একটি বাংলাদেশ গড়তে সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। গতানুগতিক নয়, সৃজনশীল কর্মকা-ে উৎসাহ প্রদানের মাধ্যমে শিক্ষা উন্নয়নে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। ভাল কাজের পৃষ্ঠপোষকতা করলে মানুষ অনুপ্রাণিত হয়। বিশেষ করে সিলেটের ইংরেজি শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং ঝড়ে পরা শিক্ষার্থীদের ধরে রাখতে এডুকেশন গাইড একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

তিনি এর ধারাবাহিকতায় রক্ষায় শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সচেষ্ট থাকার আহবান জানান। তিনি শিক্ষার উন্নয়নে প্রবাসীদের অবদানের কথা স্মরণ করে বলেন, এডুকেশন গাইড যারা গড়ে তুলেছেন তারাও শিক্ষার্থীদের কল্যানে ব্যতিক্রমী কর্মসূচি নিয়ে কাজ করছেন, যা প্রশংসার দাবী রাখে। তিনি এ কর্মসূচিকে এগিয়ে নেয়ার আহবান জানিয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ^াস দেন।
সীমান্তিক আইডিয়াল টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রউফ তাপাদার বলেন, সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী উদ্যোগের কারণেই দেশে শিক্ষা ব্যবস্থা এগুচ্ছে। সরকারের কর্মসূচিকে এগিয়ে নিতে বেসরকারী উদ্যোগও ভালো কাজ করছে। তিনি এডুকেশন গাইড এর উদ্যোগের প্রশংসা করে এর কাজে সহযোগিতার আশ^াস দেন। বিজ্ঞপ্তি