মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০ ২০
প্রবাস সংবাদ ডেস্ক
৮ সেপ্টেম্বর ২০ ২০
১১:৫৯ অপরাহ্ণ
দুই কাশেম দন্ধে ফ্রান্স আ'লীগ নতুন কমিটিকে প্রত্যাখ্যান 

ইউরোপের অন্যতম  বাংলাদেশী অধ্যূশিত দেশ হিসেবে পরিচিত ফ্রান্স এর  আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের আলোচনা  দুই কাশেম কে নিয়ে তবে মূলত দন্ধটা শুরু হয়েছে হুট করে অল ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগ কর্তৃক ফ্রান্স আওয়ামীলীগের  সভাপতি ও  সাধারণ সম্পাদক পদে দুই জনের নাম ঘোষণা করা কে নিয়ে।আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ হাসিনার নিজের হাতে দেয়া কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বেনজির আহমদ সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মহসিন খান লিটন এর মৃত্যুর পর অনেকটা আকস্মিক ভাবে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ কাশেম ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন কয়েছ কে ভারমুক্ত করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে অল ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগ।আর তাতেই পুরোনো কোন্দল জেগে ওঠেছে।রাজনৈতিক ভাবে কোন সম্মেলন ছাড়া তাদের পুর্নাঙ্গ সভাপতি ও  সাধারণ সম্পাদক এর দায়িত্ব দেয়ার কোন প্রয়োজন ছিলনা কিন্তু অগণতান্তিক ভাবে পক্ষপাত মূলক ভাবে তাদের এই দায়িত্ব দিয়েছেন অল ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক  বলে এমন দাবি করছেন কাশেম-কয়েছ বিরোধী নেতারা।তবে দলীয় গঠনতন্ত্র মেনেই নতুন সভাপতি ও  সাধারণ  সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়েছে বলে  দাবি পদপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলয়ের নেতাকর্মীদের।সভাপতি পদে এম এ কাশেম এর শক্ত প্রতিপক্ষ ফ্রান্স আওয়ামীলীগের আরেক সহ সভাপতি আবুল কাশেম ঘোষিত কমিটি বিরোধী সভাতে তাকে দেখা গেছে সামনের সারিতে যে অল ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগ এই কমিটির অনুমোদন দিয়েছে সেই অল ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগের   সহ সভাপতি পদধারী এক নেতা ও উপস্থিত ছিলেন এই সভাতে। অনেকেই একে আওয়ামীলীগের দুই কাশেমের দন্ধ বলে অভিহিত করছেন।বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ভারপ্রাপ্ত হিসেবে কাজ চালিয়ে যেতে পারতেন নতুন সম্মেলন হবার আগ পর্যন্ত তবে অতি লোভে তাতি নষ্ট হবার উপক্রম এখন।  দীর্ঘ দিনের রাজনৈতিক সহকর্মী ফ্রান্স আওয়ামীলীগের বেশির ভাগ পদধারী সিনিয়র নেতাই এই কমিটির বিপক্ষে এখন সরব। আর মধ্যম সারির নেতারা উভয় পক্ষের সাথে যোগাযোগ করে চলছেন তবে সরাসরি যোগ দিচ্ছেন না কোন সভাতেই।ফ্রান্স আওয়ামীলীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবি ফ্রান্স আওয়ামীলীগের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ শাখার নতুন কমিটি হবে সম্মেলনের মাধ্যমে অথবা আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা নিজে করে দিবেন যা সকল নেতাকর্মী মেনে নিবে এখানে তৃতীয় পথ বেছে নেবার কোন সুযোগ নেই।

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য