বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৬, ২০ ২০
হবিগঞ্জ ডেস্ক
১১ অক্টোবর ২০ ২০
৬:৩৭ পূর্বাহ্ণ
হবিগঞ্জে গৃহবধূকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ আটক ২

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে অপহরণের পর একদিন আটকে রেখে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৯ অক্টোবর এই ঘটনায় গতকাল রাতে ধর্ষিতার মা অভিযুক্ত দুই জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ রাতেই পৌরশহরে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দুইজনকে আটক করেন। আটককৃতরা হলেন চুনারুঘাট উপজেলার সদর ইউনিয়নের জিকুয়া গ্রামের আকল মিয়ার ছেলে টমটম চালক শাহাব উদ্দিন (২০) ও একই গ্রামের জলিল মিয়ার ছেলে মঈন উদ্দিন (২৫) ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, চুনারুঘাট উপজেলার বগাডুবি গ্রামের জৈনক গৃহবধূ বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি বিবাড়ীয় জেলার আখাউড়া যাওয়ার উদ্দ্যেশ্যে স্থানীয় রাজার বাজার স্ট্যান্ডে এসে শাহাব উদ্দিনের টমটমে উঠে শায়েস্তাগঞ্জের দিকে রওনা দেন। সাথে ছিল শাহাব উদ্দিনের সহযোগী মঈন উদ্দিন। তারা ওই গৃহবধূকে একা পেয়ে তুলে নিয়ে হাতুড়াকান্দি মঈন উদ্দিনের খালার বাড়ি নিয়ে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। পরদিন ওই গৃহবধূ কৌশলে তাদেরকে নিয়ে চুনারুঘাটে আসে। এসময় স্থানীয়রা তাদেরকে আটক করে পু্লেিশ খবর দেন। গতকাল রাতে চুনারুঘাট থানার এসআই সম্রাটের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করেন।

মামলার বাদী মা জানান, ৬ মাস পুর্বে আখাউড়া নতুন পাড়া মৃত তফন মিয়ার সাথে বিয়ে হয়। গত ৯ অক্টোবর দুপুরে তার স্বামীর বাড়ি যাওয়ার জন্যে বের হয়। স্ট্যান্ডে এসে শায়েস্তাগঞ্জে যেতে শাহাব উদ্দিনের টমটমে ওঠে। টমটম চালক শাহাব উদ্দিন তাকে শায়েস্তাগঞ্জ না নিয়ে মঈনউদ্দিনকে সাথে নিয়ে কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে একদিন আটকে রেখে ধর্ষণ করে।

পরে আমার মেয়ে কৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে এসে আমাদেরকে ঘটনা জানায়। এমন পরিস্থিতিতে শনিবার চুনারুঘাট থানায় এসে মামলা দায়ের করেছি বলে জানান তিনি। থানা পুলিশ মামলাটি গ্রহণ করে ওই গৃহবধূকে আজ ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠায়। এ ব্যাপারে ইন্সপেক্টর তদন্ত চম্পক দাম জানান, মামলা গ্রহণ করে আসামী দুইজনকে অপহরণ ও ধর্ষনের দায়ে জেলহাজতে প্রেরণ ও ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার পাঠানো হয়েছে।

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য