শনিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০ ২০
সুনামগঞ্জ ডেস্ক
২৪ অক্টোবর ২০ ২০
২:২১ অপরাহ্ণ
জগন্নাথপুরে জায়গার মালিকানা নিয়ে দেবর-ভাবীর বিরোধ তুঙ্গে

মো.শাহজাহান মিয়া,জগন্নাথপুর:: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের মিরপুর বাজারের পাশে অবস্থিত শিরিন সেন্টার এর জায়গার মালিকানা নিয়ে দেবর-ভাবীর বিরোধ তুঙ্গে রয়েছে। নজিপুর গ্রামের প্রয়াত যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাজ্জাদুর রহমান সফিক তার তৃতীয় স্ত্রীর নামে প্রতিষ্ঠা করেন শিরিন কমিউনিটি সেন্টার। বর্তমানে সেন্টার এর দ্বিতীয় তলায় সাজ্জাদুর রহমান সফিকের স্ত্রী শিরিন বেগম বসবাস করছেন। তবে সেন্টারটি অন্যত্র বিক্রি করার উদ্দেশ্যে বায়নাপত্র করেন শিরিন বেগম। এতে প্রতিবাদী হয়ে উঠেন প্রয়াত সাজ্জাদুর রহমান সফিকের ভাই ও চাচাতো ভাই। শুরু হয় দেব-ভাবীর বিরোধ। এর মধ্যে সাজাদুর রহমান সফিকের চাচাতো ভাই আফিজ উদ্দিন বাদী হয়ে সেন্টার এর সামনে থাকা ১৩ শতক জায়গার মালিকানা দাবি করে সুনামগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করেন। এছাড়া সেন্টার এর ভেতরে জায়গার মালিকানা দাবি করছেন প্রয়াত যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাজ্জাদুর রহমান সফিকের যুক্তরাজ্য প্রবাসী ভাই-বোন। তারা তাদের চাচাতো ভাই আফিজ উদ্দিনকে আমমোক্তার নিযুক্ত করেন।
এ বিষয়ে দেবর আফিজ উদ্দিন বলেন, সেন্টার এর সামনে থাকা ১৩ শতক জায়গার রেকর্ডিয় মালিক আমরা। আমাদের জায়গা সহ শিরিন বেগম বিক্রি করতে বায়নাপত্র করেছেন। এতেই আমাদের আপত্তির কারণ। তিনি তো এ জায়গার মালিক নন। তাছাড়া সেন্টার ভেতরে থাকা জায়গার মালিক তার স্বামী সাজ্জাদুর রহমান সফিক একা নন। এখানেও সাজ্জাদুর রহমান সফিকের প্রবাসী ভাই-বোনের মালিকানা রয়েছে। এরপরও তিনি পুরো সেন্টার বিক্রির জন্য অপচেষ্টা করছেন। তা কোন অবস্থায় কাম্য নয়।
তবে ভাবী শিরিন বেগম বলেন, আমার স্বামী সাজ্জাদুর রহমান সফিক ১৭ লাখ টাকা ঋণের বোঝা রেখে মারা গেছেন। এ ঋণ পরিশোধে কেউ এগিয়ে আসেননি। এখন সম্পত্তির ভাগ চাইছেন। তবে আফিজ উদ্দিনের পিতার কাছ থেকে সামনের ১৩ শতক জায়গার বদলে অন্য জায়গা দিয়েছেন আমার স্বামী সাজ্জাদুর রহমান সফিক।
 

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য