মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১, ২০ ২০
লাইফস্টাইল ডেস্ক
৬ অক্টোবর ২০ ২০
৩:১৭ পূর্বাহ্ণ
মাস্ক ব্যবহারে চিকিৎসকের ৭ পরামর্শ

মহামারী করোনা সংক্রমণ রোধে মাস্ক ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তিনস্তরের সুতি কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করতে পারলে সবচেয়ে ভালো।

আর মাস্ক ব্যবহারে অনেকের ত্বকের সমস্যা হতে পারে। মাস্ক পরার কারণে গাল, নাক ও চিবুকের চারপাশে ঘাম জমে স্যাঁতসেঁতে ভাব সৃষ্টি করে, যা একসময়ে ত্বকে লালচে দাগ, ত্বক জ্বালাপোড়া, ব্রণ এবং ডারমাটাইটিস বা অ্যাকজিমার মতো সমস্যার সৃষ্টি করে।

মাস্ক ব্যবহারের কিছু নিয়ম রয়েছে। আসুন জেনে নিই কীভাবে মাস্ক ব্যবহার করবেন-

১. মাস্ক পরার আগে ভালোভাবে মুখ ধুয়ে নিন। এ ছাড়া সবসময় পরিষ্কার মাস্ক পরুন। ঘামে ভিজে যাওয়া মাস্ক ব্যবহার করবেন না।

২. নিম্নমানের মাস্কে বাজার সয়লাভ। মাস্কের মাপ, কানের সঙ্গে লেগে থাকা রাবার, নোজ-পিন ঠিকভাবে থাকছে না, এমন মাস্ক পরলে করোনা প্রতিরোধ দূরের কথা, আপনার মুখমণ্ডল প্রচণ্ডভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

৩. জীবাণু প্রতিরোধক কিনা তা বুঝে নেয়ার পাশাপাশি নোজ-পিন, মাস্কের ওপরের অংশ ও নিচের অংশ আরামদায়ক কিনা বুঝে নিন। মাস্ক যেন মুখের সঙ্গে ঘষা লেগে জ্বালাপোড়া বা ক্ষত সৃষ্টি না করে, সে দিকে খেয়াল রাখুন।

৪. ত্বককে সবসময় ময়শ্চারাইজড ও হাইড্রেটেড রাখুন। মাস্ক উল্টো করে পরা উচিত নয়। এ ছাড়া ত্বকে যদি কাটা বা ফোঁড়া জাতীয় কিছু হয়ে থাকে, তবে মাস্ক ব্যবহার না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৫. প্রচুর ফলের রস ও পর্যাপ্ত পানি পান করুন। কিছু খাওয়া কিংবা রান্নার আগে ভালো করে ধুয়ে নেয়া, ডিম কিংবা মাংস রান্নার আগে ভালোভাবে সিদ্ধ করা।

৬. গাড়িতে ভ্রমণের সময় মাস্ক পরুন। তবে নিরিবিলি ও লোক সমাগম নেই এমন প্রাকৃতিক এবং নির্জন স্থানে মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই।

৭. কখনই ভেজা মাস্ক পরবেন না। ঘামে স্যাঁতসেঁতে মাস্কও খোলার পর আবার মুখে লাগাবেন না। প্রয়োজনে সঙ্গে অতিরিক্ত মাস্ক রাখতে পারেন।

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য