সোমবার, নভেম্বর ৩০ , ২০ ২০
হবিগঞ্জ ডেস্ক
৯ অক্টোবর ২০ ২০
৮:০ ২ পূর্বাহ্ণ
শরীরে মেহেদি দিয়ে লেখা, তোর কারণে মরণ আমার ক্ষমা করে দিস অ
নবীগঞ্জে তরুনীর রহস্যজনক মৃত্যু

জাবেদ ইকবাল তালুকদার, নবীগঞ্জ:: হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ৬নং কুর্শি কুর্শী ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামে ১৮ বছর বয়সী যুবতী তামান্না আক্তারের মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। গত (৮ অক্টোবর) বৃহস্পতিবার রাতে নিহত তামান্নাকে পরিবারের সদস্যরা অচেতন অবস্থায়  ঘরের মধ্যে দেখতে পেয়ে নবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ইদ্রিস আলম ওই যুবতিকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।
এ ব্যাপারে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ইদ্রিস আলম এ প্রকিবেদককে বলেন, নিহতের গলায় দাগ দেখতে পেয়ে সন্দেহ হলে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ কে আমি বিষয়টি অবগত করি। পরে নবীগঞ্জ থানার এসআই আব্দুল ওয়াদুদ এর নেতৃত্বে একদল পলিশ হাসপাতালে এসে লাশের প্রাথমিক সুরতহাল তৈরী করেন।
এ ব্যাপারে এসআই আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, নিহতের শরীরের গলায় দাগ ঠোটের নিচে আঘাতের  চিহ্ন পাওয়া গেছে। বিশেষ করে পেটের মধ্যে মেহেদি দিয়ে লেখা “তোর কারণে মরণ আমার ক্ষমা করে দিস অ”। এই লেখার  রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ। এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা সেটি ময়নাতদন্তের পর পরিষ্কারভাবে জানা যাবে।
এ ব্যাপারে নিহতের পিতা কাপ্তান মিয়া বলেন, তামান্না আমার মেজো মেয়ে সপ্তম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করার পর আর লেখাপড়া করেনি। ঘটনার সময় আমি বাজারে ছিলাম। বাজার থেকে ফিরে এসে  তামান্নাকে না দেখতে পেয়ে ডেকে আনার জন্য তামান্নার সৎ মাকে তার রুমে পাঠাই। তামান্নাকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পেয়ে চিৎকার চেচামেচি করলে আমি দৌড়ে গিয়ে দেখতে পাই  তামান্না অচেতন অবস্থায় নিছে পড়ে রয়েছে। পরে নবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপে¬ক্স এ নিয়ে গেলে ডাক্তার তামান্নাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। মৃত তামান্নার সাথে কোন ছেলের সম্পর্ক রয়েছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে এক মৃত তামান্নার পিতা বলেন, আমার মেয়ে কোনো ছেলের সাথে সম্পর্ক রয়েছে বলে আমার জানা নেই। তামান্নার মৃত্যু নিয়ে ইতিমধ্যেই এলাকায় রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে।
এদিকে  তামান্নার বাবা কাপ্তান মিয়া বাদী হয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে নবীগঞ্জ থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছেন। মেহেদি দিয়ে লেখা “তোর কারণে মরণ আমার ক্ষমা করে দিস অ” । এর রহস্য  উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ ।
এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার ওসি মোঃ আজিজুর রহমান জানান, মেয়েটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। প্রকৃত ঘটনার রহস্য উদঘাটনের লক্ষে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ মাঠে কাজ করছে।

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য