মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

খেলাফত মজলিসের সঙ্গে জাতীয় পার্টির নির্বাচনী সমঝোতা



জাতীয় ডেস্ক:: সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, সুন্দর পরিবেশ হলে বর্তমান কমিশনই সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবে। তবে দেশে এখন চলছে চরম অরাজকতা, রয়েছে সবখানে সুশাসনের অভাব।

শনিবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সঙ্গে জাতীয় পার্টির নির্বাচনী সমঝোতা উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এরশাদ বলেন, বিএনপি নির্বাচনে এলে এক ধরনের কৌশল নেবে জাতীয় পার্টি, আর না এলে আরেক কৌশল। তবে ৩০০ আসনেই মনোনয়ন দেয়ার প্রস্তুতি আছে জাতীয় পার্টির।

এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সাবেক এ রাষ্ট্রপতি বলেন, জাতীয় পার্টির একটি জোট আছে, তবে এখনও বলার সময় আসেনি কাদের সঙ্গে নির্বাচনী জোট হবে।

তিনি আরও বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্ররা খালি হাতে আন্দোলনে নেমেছিল। কিন্তু সন্তানদের মায়ের কান্না আর ছাত্রদের আর্তনাদ যেন দেখার কেউ নেই। সড়কে দুর্ঘটনায় শিশুরা জীবন দেবে, নিরাপদ সড়কের জন্য কোমলমতি শিশুরা আন্দোলন করবে এজন্য তো দেশ স্বাধীন হয়নি।

এরশাদ বলেন, মুসলিম বিশ্বকে ধংস করতে পশ্চিমাবিশ্ব ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে আজ মুসলিম দেশগুলো একে অন্যের সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত হয়ে পড়েছে। ইরাক, প্যালেস্টাইন ধংস করে দেয়া হচ্ছে, কেউ প্রতিবাদ করছে না।

তিনি বলেন, আমাদেরই প্রতিবাদ করতে হবে। মুসলমানদের বিরুদ্ধে সব ষড়যন্ত্র রুখে দাঁড়াতে হবে। ইসলামি মূল্যবোধে বিশ্বাসী দলগুলো আমাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছে, আমরা আরও শক্তিশালী হচ্ছি।

নির্বাচন প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ হচ্ছি। আমাদের সংঘবদ্ধ প্রচেষ্টায় ইসলাম ঘুরে দাঁড়াবে। আমাদের উদ্দেশ্য ইসলামকে প্রতিষ্ঠিত করা।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসসহ ইসলামি মূল্যবোধে বিশ্বাসী দলগুলো জাতীয় পার্টির সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এমন সময়ে খেলাফত মজলিস আমাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে যখন আমরা আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় যেতে স্বপ্ন দেখছি। আমরাই পারবো পরিবর্তন আনতে। জাতীয় পার্টির নেতৃত্বাধীন সরকারই সব অন্যায়-অবিচার বন্ধ করতে পারবে।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মো. জালাল উদ্দিনের পরিচালনায় এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন- খেলাফত মজলিসের আমির প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবিবুর রহমান, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের, পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, বাংলাদেশ ইসলামী খেলাফতে মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব এম এ মতিন, বিএনএ মহাসচিব মো. জাহাঙ্গীর হোসেন।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সুনীল শুভ রায়সহ দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।