বুধবার, ২২ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর

লোডিং-আনলোডিং নিয়ে বিশৃংখলা-ছাতকে ব্যবসায়ী-শ্রমিকদের প্রতিবাদসভা



ছাতক প্রতিনিধি:: সিলেটের কোম্পনীগঞ্জ উপজেলার কতিপয় ব্যবসায়ীদের নৌ-পথে বিশৃংখলার প্রতিবাদে শিল্প নগরী ছাতকের বিক্ষুদ্ধ ব্যবসায়ী-শ্রমিকরা প্রতিবাদ সভা করেছেন।

দীর্ঘদিন ধরে কোম্পনীগঞ্জের কিছু ব্যবসায়ী নিয়ম না মেনে নৌ-পথে বালু-পাথর লোডিং-আনলোডিং করছেন।

এছাড়াও সম্প্রতি কোম্পনীগঞ্জের কিছু ব্যবসায়ী অনৈতিকভাবে ছাতকের বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সরকারী একাধিক দপ্তরে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ দেয়ায় তীব্র ক্ষোভ ও অসস্তোষ দেখা দিয়েছে। এরই প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টায় শহরের কাস্টমস্ রোডে বিভিন্ন পাথর-বালু ব্যবসায়ী ও দিনমজুর শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের নিয়ে এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি হাজী মো. জয়নাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও লাল পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি নাজমুল হাসান জুয়েলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন- ইছাকলস ইউপি চেয়ারম্যান হাজী কুটি মিয়া, বিশিষ্ট মুরব্বী হাজী আশিদ আলী, ব্যবসায়ী ও আ’লীগ নেতা সৈয়দ আহমদ, পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সহ-সভাপতি হাজী সামছুল ইসলাম, ছাতক লাইম ষ্টোন ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লায়ার্স গ্রুপের সেক্রেটারী সৈয়দ তওফিক আহমদ ইকবাল, পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. আবুল হাসান, ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সহ-সভাপতি, মো. অদুদ আলম, সাধারন সম্পাদক সামছু মিয়া, ব্যবসায়ী ফজলু মিয়া চৌধুরী, ছাতক লেবার সর্দার সমিতির সভাপতি তজম্মুল আলী প্রমূখ।

বক্তরা বলেন- কোম্পানীগঞ্জের কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী ২০১০ইং সালের চুক্তি ভঙ্গ করে নৌ-পথে পাথর-বালু লোডিং-আনলোডিং করে ব্যবসায় বিশৃংখলা সৃষ্টি করছেন। চুক্তি অমান্য করে কতিপয় দু’চারজন ব্যবসায়ী লাভবান হলেও ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন অধিকাংশ বালু-পাথর ব্যবসায়ীরা।

এছাড়াও নৌ-পথে বালু-পাথর লোডিং-আনলোডিং কাজে জড়িত শত শত দিনমজুর শ্রমিকরা বেকার হয়ে পড়েছেন। ইতিমধ্যেই সরকারী ভাবে ছাতক উপজেলা নৌ-বন্দর হিসেবে ঘোষনা দিয়ে বন্দরের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী নৌ-বন্দর এলাকায় লোডিং-আনলোডিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যথায় ছাতকের ব্যবসায়ী-শ্রমিকরা কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষনা করবেন বলে ঘোষনা দেয়া হয়।