বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

পাড়ুয়া পল্লী বিদ্যুৎ সাব-ষ্টেশনের নির্মাণ কাজে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ



কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি:: সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি – ২ অর্থায়নে নির্মিত কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার পাড়ুয়া পল্লী বিদ্যুৎ সাব-ষ্টেশনের নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়ম হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। জানাযায়, ঢাকার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সানরাইজ এন্টার প্রাইজ এর প্রতিনিধিগণ প্রকল্প কাজে অতি নিম্নমানের রড, সিমেন্ট, পাথর,বালু ও ইট দ্বারা কাজ করিতেছে।

অভিযোগ রয়েছে, পাড়ুয়া এলাকার স্থানীয় সচেতন নাগরিকরা প্রকল্প কাজের ষ্টীমিট দেখানোর জন্য বলিলে তাহারা ষ্টীমিট দেখায় নাই,ষ্টীমিটে ভাল মানের বিএসআরম রড ও ভাল মানের সিমেন্ট, বালু, পাথর এবং ইট লাগানোর কথা থাকলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান শাহ আরফিন পাথর কোয়ারীর মাটি ও সিঙ্গেল মিক্সকৃত লাল পাথর,তৃতীয় গ্রেডের ইট, মাটি মিক্সকৃত বালু ও অতিনিম্ন মানের সিমেন্ট এবং ব্রান্ড বিহীন বাজারী অতিনিম্ন মানের রড দ্বারা প্রকল্প কাজ করিতেছে।

প্রকল্প কাজের প্রত্যেকটি পিলারে ৬০/৬৫ ফুট মাটির নিচে ফাইলিং করার কথা থাকলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মাত্র ১৫/২০ ফুট ফাইলিং করে পিলার নির্মাণ করিতেছে।

উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম বলেন, সানরাইজ এন্টার প্রাইজের প্রতিনিধিদের প্রকল্প কাজের ষ্টীমিট চাইলে তারা দিতে রাজি হয় নাই।

তিনি আর বলেন, এই ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ নির্মাণ কাজের কারনে সাব- ষ্টেশনটি নির্মাণ হওয়ার পর ঘূর্ণিঝড়, সিডর,ভূমিকম্প বা ভারী দমকা হাওয়ায় যেকোনো সময় দূর্ঘটনা ঘটে সাব- ষ্টেশনের আশপাশ বসতি এলাকায় ক্ষতি সাধিত হতে পারে। আমরা এলাকার গণ্যমান্য লোকজন বার বার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা সত্তেও তাহারা আমাদের কোনো কথা তোয়াক্কা না করিয়া কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।
কোম্পানীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি -২ পরিচালক সামছুজ্জ্বামান দোলন জানান, এলাকাবাসী প্রকল্প কাজে অনিয়মের কথা আমাকে জানানোর পর আমি বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাই এবং বার বার নিষেধ দেয়ার পরও তারা তাদের এই নিম্মমাণের সামগ্রী দিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে ।
সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ এর কোম্পানীগঞ্জ জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার সিরাজুল ইসলাম বলেন, প্রকল্প কাজে অনিয়ম করার অভিযোগের আবেদন এর
একটি কপি আমাদের হাতে এসেছে ,দ্রুত এই বিষয়টি খতিয়ে দেখার চেষ্টা আমরা করব।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল লাইছ জানান, এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ করা হয়েছে, যেহেতু পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি পুরোপুরি সরকারের অধীনে না থাকায় বিষয়টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির উপর দ্বায়িত্ব বর্তায়।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সানরাইজ এন্টার প্রাইজের দ্বায়িত্বে থাকা ম্যানেজার আশিকুর রহমানের সাথে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

UA-126402543-3