বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আজিমরীগঞ্জ উপ-নির্বাচন : আ‘লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন বিএনপি নেতারা



ডেস্ক রিপোর্ট: হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী এডভোকেট সাইদুল আমীন চৌধুরী শিরুল অভিযোগ করেছেন তার দলের নেতা-কর্মীরা দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন না। কেই আওয়ামীলীগ আবার কেউ আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন। এভাবে দলীয় প্রার্থী ছেড়ে প্রতিপক্ষের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার প্রভাব পড়বে আগামী জাতীয় নির্বাচনে।
শনিবার দুপুরে হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, টাকা নিয়ে তারা দলের বাহিরের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন কিনা তা আমার নিজের মুখে বলতে চাই না। তবে তদন্ত করলে প্রকৃত সত্য বেড়িয়ে আসবে। আমি দলীয় নেতৃবৃন্দকে বার বার অনুরোধ করেও একটি দলীয় সভা করাতে পারিনি। উপজেলা বিএনপি আহবায়ক গোলাম ফারুক ও পৌর বিএনপির আহবায়ক ফজলু মিয়ার নেতৃত্বে দলের একটি বড় অংশ চলে গেছে আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে এবং বিএনপি নেতা হাজী একরাম হোসেন সওদাগর এর নেতৃত্বে একটি অংশ চলে গেছে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর পক্ষে।
অনেক চেষ্টা করেও তাদেরকে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে আনতে না পেরে সমস্ত দায়ভার নিজ কাধে নিয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করেছি। এ ব্যপারে দলীয় প্রতীক ধানের শীষের মর্যাদা রক্ষার্থে বিএনপি জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপ মিডিয়ার মাধ্যমে কামনা করেন তিনি। দলের জেলা ও কেন্দ্রকে বিষয়টি জানানো হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদেরকে বিষয়টি অবহিত করতেই এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছেন।
বিএনপির নেতা-কর্মীরা তার সাথে না থাকলেও যুবদল, ছাত্রদল, কৃষকদল এবং শ্রমিকদলের নেতা-কর্মীরা এবং সাধারন জনগন তার সাথেই আছেন বলে জানান এবং নির্বাচনে ভাল ফলাফল অর্জনেরও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। নির্বাচনের কোন কারচুপির আশংকাও নেই তার মনে।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা যুবদলের সভাপতি মাসুদ পারভেজ, সাধারন সম্পাদক খালেদুর রশীদ ঝলক, পৌর সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিলু, যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি শহিদুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, কাকাইলছেও ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক মহফিল মিয়া, জসিম উদ্দিন, বদলপুর ইউনিয়ন যুবদল সভাপতি রমাকান্ত সরকার, সদর ইউনিয়ন যুবদল সভাপতি সাহেল আহমেদ মেম্বার, পৌর ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক নাছির উদ্দিন টিটু, উপজেলা ছাত্রদল নেতা মোকাররক হোসেন রন্টি, সজল চৌধুরী, আলামিন সম্রাট।

অভিযোগের ব্যাপারে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক গোলাম ফারুক জানান, তিনি শুনেছেন সংবাদ সম্মেলনের কথা। এই সংবাদ সম্মেলন একটি সাজানো নাটক। আমরাই তাকে দলীয় মনোনয়ন দিতে সুপারিশ করেছিলাম। কিন্তু দলীয় প্রার্থী হিসাবে কিভাবে কর্মীদেরকে ম্যানেজ করতে হয় তা তার জানা নেই। প্রার্থীর গাফিলতির জন্যই কর্মীরা হতাশ হয়ে বিভিন্ন দিকে চলে গেছে।
দলের সভা আয়োজনের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নির্বাচন আচরন বিধি অনুযায়ী ৫ জুলাইর পূর্বে কোন সভার করার নিয়ম ছিল না। পরে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা, সাখাওয়াত হোসেন জীবনের উপস্থিতিতে জলসুখা ইউনিয়নে ৯ জুলাই সভা আহবান করা হয়েছিল। সভার পূর্বে প্রার্থী শিরুল জানায় সে নির্বাচনে অংশ নিবে কিনা ভাইকে বলে সেই সিদ্ধান্ত নিবেন। তার কথায় সভা স্থগিত করা হয়। এর পর থেকে সে আর কোন যোগাযোগ করেনি। এমনকি আওয়ামীলীগও বলতে থাকে সে নির্বাচন করবে কিনা।
আজমিরীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মনোয়ার আলী জানান, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক গোলাম ফারুক আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পক্ষে কাজ করছেন বলে তারা অবগত আছেন।
বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সাখাওয়াত হাসান জীবন জানান, সংবাদ সম্মেলনের কথা শুনেছি। কিন্তু সংবাদ সম্মেলন করবে বলে আমাকে কিছু জানায়নি। তার অভিযোগ সম্পর্কে খোজ খবর নেয়া হচ্ছে।

UA-126402543-3