শনিবার, জুলাই ৪, ২০ ২০
এক্সক্লু‌সিভ ডেস্ক
২০ মার্চ ২০ ২০
১০ :৪৮ পূর্বাহ্ণ
সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিক আব্দুস সালাম সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা

স্টাপ রিপোটার:: সংবাদ প্রকাশের জেরে দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার বিশ্বনাথ প্রতিনিধি ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল বিশ্বনাথের ডাক ২৪ডটকমের বার্তা সম্পাদক আব্দুস সালাম ও দৈনিক সমকাল ও চ্যানেল এস এর বিশ্বনাথ প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম খায়েরসহ ৪ জনের উপর আদালতে মিথ্যা, বানোয়াট ও  সাজানো
মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ৯ মার্চ সিলেটের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩নং আমলি আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন সাবেক বিএনপি নেতা ও বর্তমান উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রফিক আলী, (বিশ্বনাথ সিআর মামলা নং ৭৭/২০২০ইং)। রফিক আলী উপজেলার শাহিজরগাঁও গ্রামের মৃত আরজান আলীর ছেলে। আদালতের বিচারক মামলায় অভিযুক্তদের সম্পৃক্ততা আছে কিনা, আগামী ৫ মে’র মধ্যে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন পাঠাতে বিশ্বনাথ থানার ওসি (প্রশাসন) শামীম মুসাকে নির্দেশ দিয়েছেন। মামলায় বাকি অভিযুক্তরা হলেন, যুক্তরাজ্য প্রবাসী মোহাব্বত শেখ ও তার চাচাতো ভাই শফিক আহমদ পিয়ার। তবে, আদালতে দায়েরকৃত ওই মামলাটি এখনও থানায় পৌঁছায়নি বলে জানিয়েছেন বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামীম মুসা।

রফিক আলীর বিরুদ্ধে বিভিন্নজনের নামে হয়রানিমূলক মামলা দায়েরের অভিযোগ রয়েছে। বিশ্বনাথ থানার প্রাক্তন অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম’র বিরুদ্ধেও আদালতে মামলা দায়ের করেছিলেন রফিক।ফেসবুকে মানহানিকর স্ট্যাটাস দেওয়ায় অভিযোগে ২০১৯ সালের ১৩ অক্টোবর ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে রফিকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন মোহাব্বত শেখ নামের এক প্রবাসী, (পিটিশন মামলা নং ৩৪৪/১৯)। এছাড়া তার বিরুদ্ধে আরও ডজন খানেক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।এদিকে গত ২ মার্চ বিশ্বনাথ থানার ওসি (তদন্ত) রমা প্রসাদ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে বাংলাদেশ মহা-পুলিশ পরিদর্শক ‘আইজিপি’ বরাবরে অভিযোগ দেন প্রবাসী মোহাব্বত শেখ। অভিযোগে তিনি আসামি রফিক আলীকে সাবেক শিবির ক্যাডারসহ তার সাথে ওসি (তদন্ত) রমা প্রসাদ চক্রবর্তীর সখ্যতার অভিযোগ আনেন। পরবর্তীতে ৫ মার্চ সিলেটের পুলিশ সুপার ও বিশ্বনাথ থানার ওসি (প্রশাসন) বরাবরে ওই অভিযোগের অনুলিপি দেওয়া হয়।ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিক আব্দুস সালাম সহ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেন মামলার অভিযুক্ত রফিক আলী। এর আগে রফিক আলী তার চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রীকে (ভাবী) অপহরণ করার অভিযোগে মামলা হওয়ায় ২০১৯ সালের গত ৩০ জুলাই ‘বিশ্বনাথে অপহরণ করে নির্যাতন, দেবর ও ভাসুর জেলহাজতে’ শিরোনামে সংবাদ দৈনিক সমকাল ও সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকমে প্রকাশিত হয়। ওই বছরের ৭ আগস্ট ভাবীকে অপহরণ করে নির্যাতন, বিশ্বনাথে দেবর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাসহ দু’জনের রিমান্ড মঞ্জুর’ এবং ৮ আগস্ট ‘প্রবাসী ভাইর স্ত্রীকে অপহরণ করে নির্যাতন, বিশ্বনাথে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রফিকসহ দু’জন রিমান্ডে’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে রফিক আলী এ মামলা দায়ের করেন। ইতিপুর্বে রফিক আলী অনেকদিন জেল হাজতেও ছিলেন।

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য