সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০ ২০
মৌলভীবাজার ডেস্ক
২১ মার্চ ২০ ২০
৩:০ ৩ পূর্বাহ্ণ
কুলাউড়ায় একই রাস্তার পাশে ২টি ইট ভাটা,রাস্তার বেহাল দশা

সেলিম আহমেদ, বিশেষ প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় রবির বাজার টু  কর্মধার রাস্তার বেহাল দশা, দেখার কি কেউ নেই? রাস্তার পাশে গড়ে উঠেছে দুটি ইট ভাটা । বর্তমানে দুটি ইট ভাটায় মাটি কাটার ধুম পড়েছে। প্রতিযোগিতা মূলক ভাবে বড় বড় ট্রাক, ট্রাক্টর দিয়ে গাড়ির চাপে রাস্তার পাশ ভেঙ্গে ধুলাবালুর সৃষ্টি হয়েছে পুরো রাস্তা জুড়ে । ধুলাবালু বর্তমানে চরম আকার ধারণ করেছে, রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ছে । ইট ভাটার  মালিকরা যদি রাস্তায় নিয়মিত পানি দিত তাহলে রাস্তার এই বেহাল দশা  হয়তো কিছুটা রেহাই পেতো । এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত ছাত্রছাত্রী যাতায়াত করে। এখানে উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠানগুলো হলো আলী আমজাদ স্কুল এন্ড কলেজ, লংলা আধুনিক ডিগ্রী কলেজ, সুলতানপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কর্মধা উচ্চ বিদ্যালয় , কর্মধা ইউনিয়ন পরিষদ ,পৃথিমপাশা ইউনিয়ন পরিষদ , পাশাপাশি ব্যস্ততম বাজার রবির বাজার। বাজারের ব্যবসায়ী, হাজার হাজার ক্রেতা, লোকাল গাড়ি সব সময় যাতায়াত করে এই রাস্তা দিয়ে। দুটি ইট ভাটা কিভাবে পুরো রাস্তা দখল নেয় এটা জনমনে প্রশ্ন । এলাকার ভুক্তভোগী জনসাধারণ অচিরেই এই দূর্ভোগ থেকে পরিত্রাণ চান , সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে  এর একটি সমাধান চান। ইট ভাটার মালিকরা যদি জমির উপর দিয়ে মাটি নেয় তাহলে ধুলাবালুর  সমস্যা থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পেতেন  । কর্মধা ইউনিয়নের সচেতন নাগরিকদের সাথে কথা হলে তারা বলেন  ধুলাবালু মুক্ত রাস্তা চাই। এ ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এলাকাবাসী । রাস্তার পাকাঢালাই উঠে তৈরি হয়েছে ছোট-বড় গর্ত । সড়কের দুই পাশে জমেছে মাটি ও বালুর স্তূপ । কোনো যানবাহন এলে বা আচমকা বাতাসে বালু ও ধুলা ছড়িয়ে পড়ে পুরো এলাকায় । ধুলাবালু উড়ে গিয়ে পড়ে আশপাশের দোকানে । হাত দিয়ে নাক-মুখ চেপে চলাচল করতে হয় স্কুল কলেজের ছাত্র ছাত্রী , পথচারী ও স্থানীয় লোকজনের । এ দুর্দশা রবিরবাজার থেকে  কর্মধা ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত এই দীর্ঘ সড়ক বেহাল হয়ে আছে। সড়কের বিভিন্ন অংশ খানাখন্দে ভরা , গাড়ি চলে হেলেদুলে। তার ওপর সম্প্রতি নতুন করে যোগ হয়েছে ধুলাবালুর যন্ত্রণা । স্থানীয়রা জানান, সড়কটিতে দীর্ঘদিন যাবৎ এই দুটি ইট ভাটার বড় বড় ট্রাক, ট্রাক্টরে ইট ভাটার জন্য মাটি আনা নেওয়া করছে । এই রাস্তা দীর্ঘদিন যাবত বড় ট্রাক চলার কারণে সড়কের বিভিন্ন জায়গায় ভেঙ্গে  গর্ত  হয়ে আছে । রাস্তায় জমে আছে মাটি ও বালু। যান চলাচলের সময় জমে থাকা এসব বালু ও মাটি বাতাসে ওড়ে। কিন্তু এসব ধুলাবালু কমাতে কোনো ব্যবস্থা নেয় না ইট ভাটা মালিক কর্তৃপক্ষ । এ ছাড়া সড়কের  দুই পাশে জমেছে বালুর স্তূপ সড়কের ধারে পড়ে আছে ছোট ছোট ইটের খোয়া, বালু ও মাটি । সড়কটিতে চলাচল করছে যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান, রিকশা ও অন্যান্য যানবাহন। যানবাহনগুলো চলার সময় ধুলা ছড়িয়ে যাচ্ছে পুরো এলাকায়। একসঙ্গে একাধিক যান চলাচল করলে সেখানে টেকা দায় হয়ে পড়ে । এ সমস্যা সামাধানের জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি আকর্ষণ করেছে্ন এলাকাবাসী । 

সম্পর্কিত খবর

পুরানো খবর দেখার জন্য