সোমবার, এপ্রিল ৬, ২০ ২০
সিলেট ডেস্ক
১৫ মার্চ ২০ ২০
৫:৩৬ অপরাহ্ণ
ধামাই বিল ভুয়া মৎসজীবীদের ইজারা দেওয়ার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্ট:: সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার ধামাই বিল প্রকৃত মৎসজীবীদের উপেক্ষা করে ভূয়া মৎসজীবীদের ইজারা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন তেরহাল মৎসজীবী সমবায় সমিতির নেতৃবৃন্দ।  শনিবার দুপুরে সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তেরহাল মৎসজীবী সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম। 
তেরহাল মৎসজীবী সমবায় সমিতি সরকার অনুমোদিত একটি সংগঠন দাবি করে তিনি বলেন, ধামাই বিল সিবিআরএমপি, হিলিফ ও ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দেওয়া ইজারার মাধ্যমে ধামাই বিলে মাছ ফলনের উপযোগী করে তুলি আমরা। সম্প্রতি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৪২৬Ñ১৪২৮ বাংলা সন মেয়াদে ইজারার জন্য একটি বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। কোনো প্রকার যাচাইবাছাই ছাড়াই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তেরহাল আদর্শ মৎসজীবী সমবায় সমিতি নামক একটি সংগঠনকে ইজারা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেন। ফলে ধামাই বিল চলে যায় একদল ভূয়া মৎসজীবীদের কাছে। প্রকৃত পক্ষে তারা মৎসজীবী নয়। এমন সংগঠনের হাতে ধামাই বিলের ইজারা তুলে দেওয়া সরকারি জলমহাল ব্যবস্থাপনা নীতি ২০০৯ এর ৫(৪)(ঙ) অনুচ্ছেদ মোতাবেক সম্পূর্ণ অবৈধ। বিষয়টি জানার পর আমরা তেরহাল মৎসজীবী সমবায় সমিতির পক্ষ থেকে অতিরিক্ত রাজস্ব কমিশনার আদালতে মিস আপিল করি। মিস আপিল নং- ক-৩৪/২০১৯। 
তিনি আরও বলেন, আমরা আদালতের কাছে সমস্ত স্বাক্ষ্য প্রমাণ উপস্থাপনের মাধ্যমে প্রমাণ করতে সক্ষম হই যে, তেরহাল আদর্শ মৎসজীবী সমবায় সমিতি একটি ভূয়া, মুখোশধারীর মৎসজীবী সংগঠন। আদালত সব কিছু যাচাই বাছাই করে তেরহাল আদর্শ মৎসজীবী সমবায় সমিতিকে ভূয়া মৎসজীবী সংগঠন হিসেবে আখ্যায়িত করে তেরহাল মৎসজীবী সমবায় সমিতির পক্ষে রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর ভূয়া মৎসজীবীদের সংগঠন তেরহাল আদর্শ মৎসজীবী সমবায় সমিতি মোশাহিদ মিয়া ও শহিদ মিয়ার নেতৃত্বে ২৩ থেকে-২৬ পর্যন্ত ৭টি দমকল মেশিন লাগিয়ে বিলের মাছ লুট করে নেয়। আমরা দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশের সাহায্য চাইলে, প্রশাসনের কাছ থেকে কোনো প্রকার সাহায্য পাইনি। উল্টো ২৬ জানুয়ারি তারিখ দিবাগত রাত প্রায় ১২টার দিকে আমাদের সংগঠন তেরহাল মৎসজীবী সমবায় সমিতির সদস্যদের ঘরে ঘরে গিয়ে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশ তল্লাশি চালায় এবং ভয়ভিতি দেখায়। পুলিশি হয়রানি না করার ব্যাপারে উপজ

Related Posts