সোমবার   ২৬ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ১০ ১৪২৬   ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

মিডিয়ার তোপে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশকে সিরিজ বঞ্চিত করায় 

ড্রীম সিলেট

প্রকাশিত : ০৪:০৮ পিএম, ২২ জুন ২০১৯ শনিবার

স্পোর্টস ডেস্ক :: অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে বেশ আক্ষেপ নিয়েই মাশরাফি বলেছিলেন, 'আমরা কাল (২০ জুন, বৃহস্পতিবার) অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিতলেও হয়তো তারা আমাদের সফরের আমন্ত্রণ জানাবে না।' ট্রেন্ট ব্রিজে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৩৩৩ রান করার পর মাশরাফির সেই আক্ষেপ অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমে ভালোমতোই প্রতিধ্বনিত হচ্ছে। বেশ কয়েকজন অস্ট্রেলিয়ান সাংবাদিক ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এমন একচোখা নীতির কড়া সমালোচনা করেছেন। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রতি এমন আচরণ করায় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার লজ্জিত হওয়া উচিত বলেও মনে করছেন তারা।অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বাংলাদেশ টেস্ট খেলেছিল ১৬ বছর আগে। এ বিষয়টিকে ভীষণ হতাশার বলে উল্লেখ করেছেন বিবিসির বিখ্যাত সাংবাদিক জিম ম্যাক্সওয়েল। আরেক বিখ্যাত অস্ট্রেলিয়ান সাংবাদিক মেলিন্ডা ফারেল তো বলেছেন, এমন আচরণের জন্য ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার লজ্জিত হওয়া উচিত। নটিংহামে ম্যাচটি ছিল বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে গত এক যুগে সব ফরম্যাট মিলিয়ে দশম ম্যাচ।দুটি টেস্ট খেলার জন্য আগামী বছর জুনে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরে আসার কথা রয়েছে। কিন্তু বর্তমান এফটিপিতে (ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রাম) ২০২৩ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বাংলাদেশ দলের কোনো টেস্ট নেই। এ কারণেই বৃহস্পতিবারের ম্যাচের পর মেলিন্ডা ফারেল টুইট করেন, 'বাংলাদেশের প্রতি সিএ (ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া) যে আচরণ করছে সেটা ভীষণ লজ্জার।'ট্রেন্ট ব্রিজের ম্যাচটি শেষে বিসিবিতে আলোচনার সময় জিম ম্যাক্সওয়েলও বাংলাদেশের প্রতি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার আচরণে হতাশ বলে জানান, 'তারা অস্ট্রেলিয়ায় খেলার সুযোগই পায় না। আমার মনে হয়, বিষয়টি নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার মনোযোগী হওয়া উচিত। ১৬ বছর আগেও তারা যে দুটি টেস্ট খেলেছিল সেগুলো হয়েছিল ডারউইন ও কেয়ার্নসের মতো জায়গায়। যারা ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে চায় তাদের জন্য বিষয়টা ভীষণ হতাশার।'বৃহস্পতিবার সাকিব-তামিম-মুশফিকদের দুর্দান্ত নৈপুণ্যের প্রশংসা করে এক বাংলাদেশি সাংবাদিক টুইট করেছিলেন, এবার হয়তো টাইগারদের জন্য অনেকগুলো দেশের বন্ধ দরজা খুলে যাবে। এর পরিপ্রেক্ষিতে অস্ট্রেলিয়ান সাংবাদিক অ্যাডাম কলিন্স টুইট করেন, 'অবশ্যই অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট প্রশাসকরা তাদের প্রতি বাজে আচরণ করছে। বর্তমান এফটিপিতে ২০২৩ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ কোনো দ্বিপক্ষীয় সফরে অস্ট্রেলিয়া আসবে না। লজ্জা, লজ্জা, লজ্জা।'অস্ট্রেলিয়ার বেশ কয়েকটি দৈনিকে ম্যাচের আগের দিন অস্ট্রেলিয়া সফর নিয়ে মাশরাফির বলা কথাগুলো গতকাল বেশ গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করেছে। সে সঙ্গে তারা ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কঠোর সমালোচনাও করেছে। প্রতিবেদনগুলোতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ এখন আর ছোট দল নয়। চলতি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো দলকে তারা দাপটের সঙ্গে হারিয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার ৩৮১ রান তাড়া করতে গিয়েও সমান তালে পাল্লা দিয়ে লড়াই করেছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার উচিত টাইগারদের উপযুক্ত মর্যাদা দেওয়া।