রোববার   ২০ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৪ ১৪২৬   ২০ সফর ১৪৪১

৬৪

জগন্নাথপুরে মিরপুর ইউনিয়নে শেরিন এবার চেয়ারম্যান প্রার্থী

প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৮ ০৬ ৩৫  

মো.শাহজাহান মিয়া,জগন্নাথপুর:: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের লড়াকু সৈনিকের নাম হচ্ছে মাহবুবুল হক শেরিন। তিনি উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের শ্রীরামসি গ্রামের বাসিন্দা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের অর্থ সম্পাদক। একটানা দীর্ঘ ১৬ বছর ধরে মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন করেছেন স্থানীয় জনতা। এসব আন্দোলনে লড়াকু সৈনিক ছিলেন মাহবুবুল হক শেরিন। জগন্নাথপুর ও বিশ^নাথ উপজেলার সীমানা নিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা সংক্রান্ত জটিলতায় আটকে গিয়েছিল মিরপুর ইউনিয়ন নির্বাচন। এ সময় স্থানীয় প্রতিবাদী জনতাদের সাথে নিয়ে এক দিকে নির্বাচনের দাবিতে উচ্চ আদালতে মামলা মোকাবেলা করেন, আবার অন্য দিকে স্থানীয় ভাবে আন্দোলন চালিয়ে যান মাহবুবুল হক শেরিন। এক পর্যায়ে এ আন্দোলন গণ-আন্দোলনে পরিণত হয়। এতে যোগ দেন ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনতা। তখন মানুষের প্রাণের দাবি হয়ে উঠে নির্বাচন। এসব আন্দোলন তখন ব্যাপক সাড়া জাগায়। প্রতিবাদী জনতার আন্দোলনের সংবাদ গণমাধ্যমেও ফলোআপ করে প্রচার ও প্রকাশ হয়। এসব আন্দোলনে মাহবুবুল হক শেরিনের মতো আরো অনেকে অগ্র-সৈনিকের দায়িত্ব পালন করেছেন।
অবশেষে উচ্চ আদালতে মামলার রায় এলো জনতার পক্ষে। নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা করলো বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনী তপশিল অনুযায়ী আগামী ১৪ অক্টোবর মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হচ্ছে।
দীর্ঘ ১৬ বছর পর আবার নির্বাচন পেয়ে আবেগ ও আনন্দে আপ্লুত হয়ে পড়েছেন আন্দোলনকামী জনতা। সেই সাথে সর্বস্তরের ইউনিয়ন বাসীর মধ্যে আলাদা উৎসব বিরাজ করছে। এবার পালাবদল হতে চলেছে ক্ষমতার। পরিবর্তন আসছে জনপ্রতিনিধিদের। বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান জমির উদ্দিন নির্বাচনে অংশ না নেয়ায় এবার চেয়ারম্যান পদে নতুন মুখ আসছেন। কারণ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে যাঁরা প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন, তাঁরা সবাই নতুন মুখ। এর মধ্যে রয়েছেন সেই লড়াকু সৈনিক মাহবুবুল হক শেরিন। তিনি দীর্ঘ ১৬ বছর নির্বাচনের দাবিতে লড়াই করে এবার চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ধিতায় নেমেছেন। 
২৯ সেপ্টেম্বর রোববার স্থানীয়দের অনেকে বলেন, উচ্চ আদালত জনতার পক্ষে রায় দিয়েছেন বলেই নির্বাচন হচ্ছে। এবার স্থানীয় ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রদানের মাধ্যমে কার পক্ষে রায় দিবেন তা বুঝা না গেলেও ঘুরেফিরে আলোচনায় শেরিনের নাম চলে আসছে। এখন শুধু অপেক্ষার পালা। নির্বাচনের দিন দেখা যাবে কার পক্ষে জনতা রায় দিয়েছেন। কে হচ্ছেন আগামী দিনের মিরপুর ইউনিয়নের অভিভাবক।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহবুবুল হক শেরিন বলেন, দীর্ঘ ১৬ বছর নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনের পাশাপাশি উচ্চ আদালতে মামলা চালাতে গিয়ে আমার ব্যক্তিগত ভাবে প্রায় সাড়ে ৪ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। আমি তা বলতে চাই না। শুধু ইউনিয়নের কাঙ্খিত উন্নয়ন ও মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য প্রার্থী হয়েছি। বাকিটা জনতার হাতে। 
 

Dream Sylhet
ড্রীম সিলেট
ড্রীম সিলেট
এই বিভাগের আরো খবর