জৈন্তাপুরে আধুনিক পিস্তল সহ সন্দোহজনকে ৭জন আটক


জৈন্তাপুর প্রতিনিধি:: | ০৯:১৯ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ০২, ২০১৯

IMG



জৈন্তাপুর উপজেলা সদরের নিজপাট কমলাবাড়ী এলাকা থেকে গুলি ভর্তি পিস্তল সহ ৭জন সন্দোহজনক অপরিচিত ব্যক্তি কে জনতা আটক করে। খবর পেয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে জনতা আটককৃত ব্যক্তিদের অস্ত্র সহ পুলিশের কাছে প্রেরন করেন। 
আজ ২ ডিসেম্বর সোমবার দুপুর ২টা দিকে এই ঘটনা ঘটে। জানাগেছে, কমলাবাড়ী গ্রামের জালাল উদ্দিন পাখি মিয়ার বাড়িতে অপরিচিত ৭/৮জন লোক সন্দোহজনক ভাবে ঘুরাফেরা করতে থাকেন। এ সময় একই গ্রামের নানু মিয়ার সাথে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে তাদের মধ্যে বাক বির্তক হয়। তখন সন্তোহজনক ব্যক্তিগনের মধ্যে একজন পিস্তল বের করে গুলি করার চেষ্টা চালান। 
এসময় বাড়ির মহিলা ও শিশুদের আত্মচিৎকার শুনে পার্শ্ববর্তী বাড়ির নারী-পুরুষরা ছুটে আসেন। মহিলা ও পুরুষরা তাদের সাথে ধস্তাধস্তি করে পিস্তল হাতে থেকে কেড়ে নেন।  স্থানীয় ভাবে ডাকাতির ঘটনার খবর প্রচার হওয়ার সাথে সাথে বাড়ির চারিদিকে জনতা ঘেরাই করে গুলি ভর্তি পিস্তল সহ ৪ জনকে আটক করে পুলিশ। তখন আরও ৩ জন গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ সহ নিজপাট ইউনিয়ন পরিষদের (ভারপ্রাপ্ত) চেয়ারম্যান মো: ইয়াহিয়া, ইউপি সদস্য মনসুর আহমদ সহ অনেকেই কমলাবাড়ি এলাকায় ছুটে যান। 
এ সময় জনতা আটক ব্যক্তিদের গণদুলাই দিয়ে পুলিশের নিকট সোর্পদ করেন। বিকেল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬ পর্যন্ত জৈন্তাপুর মডেল থানায় অফিসার (ইনচার্জ) শ্যামল বণিক এলাকার কয়েকজন মুরব্বী এবং আটক ব্যক্তিদের সাথে সমঝোতা করার চেষ্টা চালান। 
আটককৃতদের মধ্যে হাসান আহমদ (৬০) পিতা মৃত হাজী শফি উল্লাহ, সাং বিহঙ্গা ৪৮/কাজীটুলা সিলেট,  মো: বেলাল উদ্দিন (৪৩) পিতা মৃত সোনা মিয়া সাং ৬০ প্রবাহ মাছু দীখিরপার সিলেট, মো: সুজন মিয়া  (২৭) পিতা তাজুল ইসলাম, সাং ৪৮ বিহঙ্গা ,কাজীটুলা সিলেট, বিজয় ধর (৩০) পিতা কৃষ্ণ পদ ধর সাং তালতলা,৫২/২ মাছু দীখির পার সিলেট, জামাল উদ্দিন আহমদ (৫৪) পিতা মৃত আরশাদ আলী সাং লামাবাজার নয়াপাড়া ,বাসা বীথিকা  বি -১২/১ সিলেট। হাসান আহমদের সাথে কমলাবাড়ী এলাকার জনগনের জায়গা জমির বিরুদ্ধ রয়েছে বলে একটি সূত্র জানাই। 
এ ব্যাপারে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার (ইনচার্জ) শ্যামল বনিক অস্ত্র সহ ৫জন ব্যক্তি জনতার হাতে আটক হওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, এখানে জায়গা নিয়ে বিরুদ্ধে রয়েছে। উভয়ের মধ্যে ঘটনা টি ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। তিনি জানান, পিস্তলের লাইসেন্স রয়েছে। স্থানীয় ভাবে জনপ্রতিনিধি ও এলাকার মুরব্বীগনের সঙ্গে কথা বলে ঘটনাটি নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করা হচ্ছে। 
এই ঘটনায় নানু মিয়া কে প্রাণনাসের চেষ্টায় এলাকাবাসী এবং পরিবারের পক্ষ থেকে জৈন্তাপুর মডেল থানায় পৃথক মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে জানাগেছে। 




সম্পর্কিত খবর -----------------------------






লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন




পুরানো খবর দেখুন