বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

নেত্রীর সিদ্ধান্ত মেনেই রাজনীতি-প্রবাসী আওয়ামীলীগ নেতা মমতাজ চৌধুরী



সেলিম আহমেদ, সৌদি আরব:: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নেত্রকোনা – ৪ ( মদন , মোহনগন্জ , খালিয়াজুরি ) উপজেলা নিয়ে গঠিত আসনে প্রবাস প্রত্যাগত নেতা ,জেদ্দা আওয়ামী লীগের বিদায়ী সভাপতি ও আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সদস্য , মুক্তিযোদ্বা মমতাজ হুসেন চৌধুরী নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেও মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ার পর বিদ্রোহী বা স্বতন্ত্র প্রার্থী হননি ।

বিভিন্ন জরিপে ও এলাকার সাধারন ভোটারদের আলোচনায় পছন্দসই ও ক্লিন ইমেজের হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে তিনি জনপ্রিয়তার শীর্ষে ছিলেন । মদন উপজেলার বাসিন্দা মমতাজ এলাকায় আত্মীয় স্বজন সমৃদ্ব প্রভাবশালী বলে বিরোধী দলের মধ্যে ও আতংক ছিল । বি এন পির দন্ডপ্রাপ্ত নেতা বাবরের স্ত্রী ধানের শীষের প্রার্থী হলে ভোটের মাঠে সমুচিত জবাব দেওয়ার জন্য নানা হিসেবে মমতাজের বিকল্প ছিলনা ।

বিগত নির্বাচন গুলোতে নৌকা প্রতীকের বিজয়ের লক্ষে সাহসী ভুমিকা পালন করে তৃনমুল কর্মীদের কাছে অনেক গ্রহনযোগ্য ছিলেন । মাননীয় নেত্রীর ও মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্তে অবিচল থেকে , কর্মী ও গুনগ্রাহীদের আবেগ , কান্না ও চাপ উপেক্ষা করে তিনি নির্বাচন কমিশনে ফর্ম জমা না দিয়ে নৌকার মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান ।

অনেক প্রবাসী নেতারা উষ্মা প্রকাশ করে উনাকে ফোন দিয়েছেন , নেত্রী কথাই শেষ কথা বলে সবাইকে উত্তর দেন । তিনি আমাদের প্রতিনিধিকে জানান , জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী ও নৌকার বিজয়ের লক্ষে দেশে ও প্রবাসে সমান্তরালভাবে কাজ করবেন । ১৯৬৯ থেকে ছাত্রলীগ শুরু করে জাতির জনক হত্যার পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত অবস্তায় ছাত্রলীগের ত্যাগী কর্মী হিসেবে সিনিয়রদের কাছে সুপরিচিত ছিলেন ।

১৯৯১ সালে নির্বাচনে পরাজয়ের পর ১৯৯২ সালে জন নেত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদন ও পরামর্শে রাজনীতি নিষিদ্ধ দেশ সৌদি আরবে আওয়ামী লীগের ছদ্মনাম ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশ গঠন করে আওয়ামী লীগের কাজ শুরু করেন । ১৯৯৮ সালে বন্যায় , ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা ও ১/১১ দুর্দিনে মমতাজ ও তার সংগঠন প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় তহবিলে আর্থিক অনুদান সহ , নেত্রীর মুক্তি দাবী , আগষ্ট শহীদদের নামে বদলী ওমরাহ সহ নানা কর্মসুচী পালন করে শেখ হাসিনার আস্তাভাজন হিসেবে আছেন ।

তিনি নিজ দেশে রাজনীতিতে সক্রিয় ও নিয়মিত হওয়ার উদ্দেশ্যে এয়ারলাইন্সের উচ্চ বেতনের পজিশন জব থেকে ইস্তফা দেন ও আওয়ামী লীগের গৃহীত সকল কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত আছেন ।