সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সিলেটে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক দুই ছাত্রনেতার মতবিনিময়



একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেটের দুটি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে চান সাবেক দুই ছাত্রনেতা জগলু চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট মাহফুজুর রহমান মাহফুজ। বর্তমানে তারা দুজনই জেলা আওয়ামী লীগের দুটি গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় সিলেটের একটি অভিজাত হোটেলের হলরুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রার্থীতার ঘোষণা দেন তারা। এদের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাহফুজুর রহমান সিলেট-৪ (জৈন্তাপুর- গোয়াইনঘাট ও কোম্পানীগঞ্জ) আসনে ও জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক জগলু চৌধুরী সিলেট-২ (বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগর) আসনে প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন।

তারা দু’জনই শনিবার ঢাকায় দলীয় নির্বাচনী বোর্ড থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করবেন বলেও জানান। তবে, দলের পক্ষ থেকে তাদের মনোনয়ন না দিলে ‘বিদ্রোহ’ না করে যাকেই মনোনয়ন দেওয়া হবে তার পক্ষে কাজ করার কথাও জানান তারা।

যৌথ সংবাদ সম্মেলনে জগলু চৌধুরী বলেন, ‘সিলেট-২ আসন অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি আসন। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে এ আসনের সাধারণ মানুষের সাথে জনসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নও চান তিনি।’

পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবীদ হিসেবে পরিচিত সাবেক এ ছাত্রনেতা আরও বলেন, ‘আমার রাজনৈতিক জীবনে কখনো অস্ত্রনির্ভর অসুস্থ রাজনীতি অথবা উপদলীয় কোন্দল সর্বস্ব বিভাজনের রাজনীতিতে জড়িত ছিলাম না বলেই মানুষের সমর্থন ও ভালবাসা অর্জন করতে পেরেছি। যে কারণে আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেলে সিলেট-২ আসনের জনগণ আমায় বিপুল ভোটে জয়ী করবে।’

সংবাদ সম্মেলনে অ্যাডভোকেট মাহফুজ বলেন, ‘দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কখনো কোন অরাজনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত হইনি। ব্যক্তিগত জীবনে আমি সিলেটে জেলা বারের আইনজীবি এবং বর্তমানে সরকারের এডিশনাল পিপির দায়িত্বে রয়েছি। এছাড়া ছাত্রজীবন থেকেই সিলেট-৪ আসনের জনসাধারণের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতাও রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘দীর্ঘ ৩৫ বছরের রাজনৈতিক জীবনে বহু প্রতিকূলতার সম্মুখিন হয়েছি। তবে নীতি আদর্শ থেকে একবিন্দুও বিচ্যুত হইনি। দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশার দাবি আমার রাজনৈতিক অধিকার। সেই অধিকার থেকেই আমি সিলেট-৪ আসনের প্রার্থীতা ঘোষণা করছি।’

সংবাদ সম্মেলনে শাবি ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগের অর্থ উপ-কমিটির সদস্য মাছুম বিল্লাহ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট নূরে আলম সিরাজী, এম জালাল উদ্দিন, সাবেক ছাত্রনেতা ফারুক আহমদ, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য এম. সুহেল আহমদ।