সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব নিতে নজরুলের অস্বীকৃতি



নিজস্ব প্রতিবেদক: সিলেট জেলা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন সিনিয়র সহ সভাপতি (বিদ্রোহী) মো. নজরুল ইসলাম।

বুধবার (০৭ নভেম্বর) একটি মামলায় জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমনকে আদালত কারাগারে পাঠালে সভাপতি পদটি শূন্য হয়ে যায়। এ অবস্থায় দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান মিন্টু জেলার সিনিয়র সহ সভাপতি (বিদ্রোহী) নজরুল ইসলামকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব নেয়ায় অনুরোধ জানালে তিনি তাতে অস্বীকৃতি জানান।

তার এ অস্বীকৃতির কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে নজরুল ইসলাম বলেন- ‘কেন্দ্র থেকে সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে। কিন্তু আমরা তো ওই কমিটিই মানি না। তাহলে তো দায়িত্ব নেয়ার প্রশ্নই আসে না।’

এদিকে নজরুল ইসলামের অস্বীকৃতিতে জেলা ছাত্রদলের সহ সভাপতি (১) এনামুল হককে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন তার বলয়ের নেতারা। কেন্দ্র থেকে এ ব্যপারে কোনো দিক নির্দেশনা না পাওয়ার আগেই এনামুল হককে সহ সভাপতি ঘোষণা দেয়ায় দলের মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়েছে। এছাড়া এনামুল হকের বিরুদ্ধে পূর্বে শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ থাকায় বিষয়টি নিয়ে শুরু হয়েছে আলোচনা-সমালোচনা।

এ ব্যাপারে এনামুল হকের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন- ‘সিনিয়র সহ সভাপতি নজরুল ইসলাম সংগঠন থেকে আগেই পদত্যাগ করেছেন। যা বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় এসেছে। ফলে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব আমার উপরই বর্তায়।’

নজরুল ইসলামসহ বিদ্রোহীদের পদত্যাগপত্র তো কেন্দ্র গ্রহণ করেনি; এমন প্রশ্নে এনাম বলেন- পদত্যাগপত্র কেন্দ্র গ্রহণ করেছে বলে উল্লেখ করে।

এছাড়া তার বিরুদ্ধে পূর্বে শিবিরের রাজনীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ সম্পর্কে তিনি বলেন- এ অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। কেউ প্রমাণ দিতে পারলে সাথে তিনি পদত্যাগ করবেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ জুন সিলেট জেলা মহানগর ছাত্রদলের কমিটি গঠনের ২৪ ঘণ্টা পেরোনোর আগেই ঘোষিত কমিটির নেতৃবৃন্দকে ভারসাম্যহীন, অছাত্র, অযোগ্য ও ছিনতাইকারীসহ নানা অভিযোগ এনে কমিটি থেকে সিনিয়র ৯ নেতা পদত্যাগের ঘোষণা দেন। পরবর্তীতে তাদের পদত্যাগপত্র কেন্দ্র বরাবরে জমা দিলে কেন্দ্র তা গ্রহণ না করে বিষয়টি দেখে দেবেন বলে তাদেরকে শান্ত থাকার পরামর্শ দেন। এখন পর্যন্ত ওই আশ্বাসের মধ্যেই বিষয়টি রয়ে গেছে।