সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সিলেট ষ্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুর লড়াই



স্পোর্টস ডেস্ক::  সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের অভিষেক টেস্টের প্রথম দিনে আধিপত্য বিস্তার করে রাখলেন বাংলাদেশি বোলাররা। যে বোলিং লাইনআপে নেই সাকিব-মুস্তাফিজ কিংবা শফিউলরা। দিনশেষ সফরকারীদের ৫ উইকেট তুলে নিতে পেরেছে স্বাগতিক দল। মাসাকাদজার ৫২ এবং উইলিয়ামসের ৮৮ রানে ভর করে দিনশেষে ২৩৬ রান তুলেছে জিম্বাবুয়ে। খেলা হয়েছে মোট ৯১ ওভার।

আজ শনিবার সিরিজের প্রথম টেস্টে টসে জিতে বাংলাদেশকে ফিল্ডিংয়ে আমন্ত্রণ জানায় সফরকারী জিম্বাবুয়ে। দলীয় ৩৫ রানেই জিম্বাবুয়ের ওপেনার ব্রায়ান চারি ১৩ রান করে বোল্ড হয়ে যান তাইজুলের বলে। ১২ রানের ব্যবধানে দ্বিতীয় আঘাত হানেন তাইজুল। এই বাঁহাতির ঘূর্ণিবলে নাজমুলের দারুণ ক্যাচে পরিণত হন অভিজ্ঞ ব্রেন্ডন টেইলর (৬)।

ব্রেন্ডন টেইলর আউট হওয়ার পর শন উইলিয়ামসকে নিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। তৃতীয় উইকেট জুটিতে আসে ৩৮ রান। এর মাঝেই মাসাকাদজা ৯১ বলে ৪টি চার এবং ২ ছক্কায় হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন। আবু জায়েদের বলে বোল্ড হওয়ার সময় তার সংগ্রহ ৫২ রান। জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেটের পতন হয় দলীয় ৮৫ রানে।

জিম্বাবুয়ের চতুর্থ উইকেটের পতন ঘটে দলীয় ১২৯ রানে। সিকান্দার রাজাকে (১৯) বোল্ড করে দেন অভিষেক টেস্ট খেলতে নামা নাজমুল ইসলাম অপু। প্রথম টেস্ট উইকেট নিয়েই শুরু হয় অপুর বিখ্যাত ‘নাগিন নাচ’। এরপর শুরু হয়ে শন উইলিয়ামসের লড়াই। ১২৪ বলে তুলে নেন ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফ সেঞ্চুরি। কিন্তু তিন অংকের খুব কাছে গিয়েও স্পর্শ করা হলো না উইলিয়ামসের।

কোনোভাবেই ভাঙা যাচ্ছিল না পঞ্চম উইকেট জুটি। পিটার মুরকে নিয়ে উইলিয়ামস জুটিতে তুলে ফেলেছিলেন ৭২ রান। সেঞ্চুরির খুব কাছে চলে গিয়েছিলেন উইলিয়ামস। শেষ অবধি নিজেই বল হাতে তুলে নিলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। তার বলে স্লিপে দুর্দান্ত ক্যাচ নিলেন মেহেদী মিরাজ। আক্ষেপ জাগিয়ে থামল ১৭৩ বলে ৯ বাউন্ডারিতে গড়া উইলিয়ামসের ৮৮ রানের চমৎকার ইনিংস। দিনের বাকী সময়টা পিটার মুর (৩৭*) এবং রেজিস চাকাভা (২০) অবিচ্ছিন্ন থেকে কাটিয়ে দেন।

বাংলাদেশের হয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। ১টি করে নিয়েছেন আবু জায়েদ, মাহমুদউল্লাহ এবং অভিষিক্ত নাজমুল ইসলাম অপু।

এদিন সাদা পোশাকে অভিষেক হয়ে গেল স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু এবং আরিফুল হকের। নাজমুলের অভিষেক অনেকটা অনুমিত থাকলেও আরিফুলের অভিষেকটা বেশ চমক। ব্যাট হাতে ইনিংস শুরু করবেন লিটন দাস এবং ইমরুল কায়েস। একাদশে নেই মুস্তাফিজুর রহমান। সুযোগ পয়েছেন আবু জায়েদ রাহী। আরও দুই স্পেশালিস্ট স্পিনার হিসেবে আছেন মেহেদী হাসান মিরাজ এবং তাইজুল ইসলাম।

এই ম্যাচের মধ্যে দিয়ে টেস্ট অভিষেক হয়ে গেল সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের। এর আগে এই মাঠে আন্তর্জাতিক ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হলেও সাদা পোশাকের ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়নি। সিলেট দেশের ৮ম টেস্ট ভেন্যু এবং বিশ্বের মধ্যে ১১৬তম।বাংলাদেশের কাছে সর্বশেষ চার টেস্টেই হেরেছে জিম্বাবুয়ে। এই সিরিজের আগে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে।

বাংলাদেশ একাদশ : লিটন দাস, ইমরুল কায়েস, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম (উইকেটকিপার), মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), আরিফুল হক, মেহেদী মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাজমুল ইসলাম অপু, আবু জায়েদ।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, ব্রায়ান চারি, ব্রেন্ডন টেইলর, শন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, রেজিস চাকাভা, ব্র্যান্ডন মাভুটা, কাইল জার্ভিস, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, টেন্ডাই চাটারা।