মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত



আসহাবুর ইসলাম শাওন, কমলগঞ্জ থেকেঃ “শিল্প-সংস্কৃতি-সংগ্রাম, আমাদের যুদ্ধ অবিরাম” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে উৎসবমুখর পরিবেশে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলা সংসদের চতুর্দশ সম্মেলন আজ সোমবার দুপুর ১টায় কমলগঞ্জ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন হয়।

পরে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

বেলা দেড়টায় উদীচী কমলগঞ্জ শাখার সভাপতি অধ্যাপক মঞ্জুশ্রী রায়ের সভাপতিত্বে ১ম পর্বের আলোচনা সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী মৌলভীবাজার জেলা সংসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গণসঙ্গীত শিল্পী মীর ইউসুফ, যমুনা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি আহমেদ আফরোজ, লেখক-গবেষক আহমদ সিরাজ, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি বিশ্বজিৎ রায়, বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সমরজিত সিংহ, বিশিষ্ট সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী হাজী জয়নাল আবেদীন, কমলগঞ্জ মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গাজী সালাউদ্দিন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নারীনেত্রী বিলকিস বেগম, প্রধান শিক্ষক বীরেন্দ্র চন্দ, মণিপুরী ললিতকলা একাডেমির গবেষণা কর্মকর্তা প্রভাস সিংহ, কমলগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহীন আহমেদ, কমলগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি এস, এ, চৌধুরী, শিক্ষক ভূবন মোহন সিংহ, সাংবাদিক শাব্বির এলাহী, কমলকুঁড়ি সম্পাদক পিন্টু দেবনাথ, সংস্কৃতিকর্মী রঞ্জিত অধিকারী, মোনায়েম খান প্রমুখ।

সম্মেলনে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভা শেষে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠি কমলগঞ্জ উপজেলা শাখা সংসদের শিল্পীদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন শেষে অনুষ্ঠিত কাউন্সিল অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে অধ্যাপক মঞ্জশ্রী রায়কে পূণ:রায় সভাপতি ও সাংবাদিক শাব্বির এলাহীকে সাধারণ সম্পাদক করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কমলগঞ্জ উপজেলা শাখা সংসদের নতুন কমিটি গঠন করা হয়। সন্ধ্যায় নবনির্বাচিত কমিটির পরিচিতি ও শপথ বাক্য পাঠ করান উদীচী মৌলভীবাজার জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গণসঙ্গীত শিল্পী মীর ইউসুফ।

আলোচনা সভায় বক্তারা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য এ দেশে জঙ্গীবাদ, মৌলবাদের উত্থান রোধে প্রগতিশীল ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান জানান। গণমানুষের সংস্কৃতির চেতনা উদীচী জন্ম থেকেই বহন করে চলছে এবং চলবে। মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত সাংস্কৃতিক পর্যায়গুলো সঠিকভাবে চর্চা এবং বিকাশলাভ করেনি বলেই ধর্মান্ধ, সাম্প্রদায়িক শক্তির উত্থান ঘটেছে । সাংস্কৃতিক সংগঠন হিসেবে একমাত্র উদীচীই সেই ধারণাগুলো অনুসরণ করছে এবং আরো বেশি চর্চার মাধ্যমে একটি সাংস্কৃতিক আন্দোলনের নেতৃত্ব দিতে হবে।