বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বাকশালী সরকার গোটা বিচার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে: সিলেট বিএনপি



২১শে আগষ্টের গ্রেনেড হামলাকে হাতিয়ার বানিয়ে আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকার তাদের রাজনৈতিক প্রতিহিংসাকে চরিতার্থ করেছে। অন্যায় ও অযৌক্তিকভাবে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমান সহ বিএনপি নেতাদের জড়িয়ে ফরমায়েসী সাজা প্রদানের রায় জাতি প্রত্যাখ্যান করেছে বলে দাবি করেছেন সিলেট বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ।

বৃহস্পতিবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসুচীর অংশ হিসেবে সিলেটের রেজিষ্ট্রি মাঠে আয়োজিত বিক্ষোভ সভায় বিএনপি নেতারা এমন বক্তব্য প্রদান করেন।
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ফরমায়েসী রায়ে যাবজ্জীবন সাজা প্রদানের প্রতিবাদে সিলেট জেলা ও মহানগর আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, দেশের জনগণ আওয়ামীলীগ সরকারের বিচার ব্যবস্থা সম্পর্কে পুরো অবগত আছে। আদালতকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহারের মাধ্যমে বাকশালী সরকার গোটা বিচার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তাদের ভয়াল রোষানল থেকে তাদের অনুগত প্রধান বিচারপতিও রেহাই পান নি। এমন অবস্থায় আওয়ামীলীগের কাছ থেকে ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করা বোকামির শামিল। অবিলম্বে এই ফরমায়েসী রায় বাতিল করতে হবে। তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন দিতে হবে।
বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে ও মহানগর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত চৌধুরী সাদেক এর পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা আলহাজ্ব এম. এ হক, বিএনপির কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফি আহমদ চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা: শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী, মহানগর সহ-সভাপতি এডভোকেট হাবিবুর রহমান হাবিব, ফরহাদ চৌধুরী শামীম, জিয়াউল গণি আরেফিন জিল্লুর, রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, জেলা সহ-সভাপতি একেএম তারেক কালাম, শাহজামাল নুরুল হুদা, মহানগর সহ-সভাপতি অধ্যাপিকা সামিয়া বেগম চৌধুরী, জেলা সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম সিদ্দিকী, এডভোকেট আতিকুর রহমান সাবু, হুমায়ুন আহমদ মাসুক, জেলা যুগ্ম সাধারণ সৈয়দ সাফেক মাহবুব, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট হাসান আহমদ পাটোয়ারী রিপন, আব্দুল আহাদ খান জামাল, আবুল কাশেম, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব চৌধুরী, দফতর সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম আলো, জেলা দফতর সম্পাদক এডভোকেট মো: ফখরুল হক, জেলা মহিলা দলের সভাপতি জাহানারা ইয়াসমিন, জেলা ছাত্রদল সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন, মহানগর সভাপতি সুদীপ জ্যোতি এষ, জেলা হকার্স দলের সাধারণ সম্পাদক খোকন ইসলাম। শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মহানগর বিএনপির আপ্যায়ন সম্পাদক আফজাল উদ্দিন। এছাড়া নগরী ঐতিহাসিক রেজিষ্টারী মাঠে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সকল পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
সভাপতির বক্তব্যে আবুল কাহের চৌধুরী শামীম বলেন- অবৈধ ফ্যাসিস্ট সরকার আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার যে ষড়যন্ত্র শুরু করেছিল ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার মামলার ফরমায়েসী রায়ে তার নগ্ন বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। জাতি বাকশালী সরকারের এই ফরমায়েসী রায় ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে।
বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা আলহাজ্ব এম. এ হক বলেন- আওয়ামীরীগের বাকশালী শাসনে দেশের প্রতিটি রাষ্ট্রযন্ত্র আজ বাকশালীরুপে জাতির নিকট আবির্ভুত হয়েছে। বিএনপিকে নেতৃত্বশুণ্য করতে প্রথমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ষড়যন্ত্রমুলক মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রাখা হলো, এখন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানকে যাবজ্জীবন সাজা দিয়ে রাজনীতির ময়দান থেকে দুরে রাখার নীল নকশা করা হলো। কিন্তু কোন ষড়যন্ত্রই সফল হবেনা। দেশনেত্রীকে নিয়েই বিএনপি নির্বাচনে যাবে এবং সময়ের ব্যবধানে সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দেশনায়ক তারেক রহমান বীরের বেশে বাংলাদেশে আসবেন।
সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম বলেন- দেশের আদালতগুলোতে এখন সরকারের কাছ থেকে প্রেরিত রায় পাঠ করে শোনানোর প্রতিযোগিতা চলছে। কেউ ন্যায় বিচার করলে সেই বিচারককে শুধু চেয়ার নয়, এমনকি দেশও ছাড়তে হচ্ছে। নিজেদের লোকদের বিচার প্রক্রিয়ায় জড়িত করে ইচ্চে মাফিক তদন্ত এবং রায় প্রদান করা হচ্ছে। এই সরকারের কাছে ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করে কোন লাভ নেই। গণবিস্ফোরণে এই সরকারকে বিদায় করে জনতার সরকার প্রতিষ্টিত হলেই মানুষ ন্যায় বিচার পাবে। -বিজ্ঞপ্তি