বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

গোলাপগঞ্জের প্যানেল মেয়র সেলিমের বিরুদ্ধে অপপ্রচার



সিলেটের অনলাইন বিভিন্ন নিউজ পোর্টালে ‘‘গোলাপগঞ্জে নৌকার পক্ষে কাজ করায় বাড়িতে হামলা: আহত ২’’ শিরোনামে গোলাপগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো. জহির উদ্দিন সেলিমকে জড়িয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তির সংবাদের সাথে ভিন্নমত পোষন করেছেন তিনি।

রোববার (৭ অক্টোবর) এক নিন্দা ও প্রতিবাদ লিপিতে তিনি বলেন, সদ্য সমাপ্ত পৌরসভা উপ-নির্বাচনের দিন আমার ১নং ওয়ার্ডে সিরাজুন বেগম নামক এক বিধবা মহিলার সাথে সুমন আলী নামক এক ব্যক্তির ভোট দেওয়া নেওয়া নিয়ে বাক বিতন্ডা, মারামারি ও উক্ত বিধবা মহিলার খাবার প্লেইটে ছাই এবং বালু দেওয়ার ঘটনা ঘটে। ঐ দিন উক্ত বিধবা মহিলা আমাকে সহ এলাকার মুরব্বিয়ানগণকে অবহিত করলে পরবর্তীতে তা দেখার আশ্বাস প্রদান করা হয়। পরদিন ৪ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টায় মহিলা ও তার সন্তানাদি আবারও বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। উক্ত ঘটনায় অবহিত হওয়ার পরই মুরব্বিয়ানদেরকে নিয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে শালিশ বৈঠকের উদ্যোগ গ্রহণ করি। পরবর্তীতে সুমন আলী শালিশ বৈঠকে না এসে পরাজিত প্রভাবশালী এক মেয়র প্রার্থীর ইন্দন ও মদদে আমি ও আমার ভাই সহ এলাকার মুরব্বি, যুবকদের আসামী করে গোলাপগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। উক্ত মূল ঘটনাকে আড়াল করে ঘৃণ্য অপপ্রয়াশ ও পরাজয়ের বেদনায় প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে আমাকে মামলায় জড়ানো হয়েছে।
তিনি বলেন, প্রকাশিত সংবাদে তাকে জামায়াত নেতা বলে উলে­খ করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। মো. জহির উদ্দির সেলিম তিন বারের নির্বাচিত কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র। আওয়ামী পরিবারের সন্তান তিনি। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে তার চাচা তজীব আলী শহীদ হন।

তাই এসব মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করায় তিনি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং সত্যতা নিশ্চিত করে সংবাদ প্রকাশ করার আহ্বান জানান।