বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ ব্যাংক সিলেটে ক্যাশ অফিসার বরণ অনুষ্ঠান



সততা ও দক্ষতার মাধ্যমে মেধাকে প্রয়োগ করে দেশের জন্য কাজ করতে হবে– মো. সাজ্জাদ হোসেন
বাংলাদেশ ব্যাংক, সিলেট-এর নির্বাহী পরিচালক মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের মত সম্মানিত প্রতিষ্ঠানে নিজেদেরকে মেধা ও যোগ্যতা দিয়ে শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করেছো।

দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন তোমাদের হাত ধরেই রচিত হবে। এজন্য সততা ও দক্ষতার মাধ্যমে মেধার প্রয়োগ করে দেশের জন্য কাজ করতে হবে। সকলের প্রতি সম্মান ও ভালোবাসা প্রদর্শন করে মানুষকে সেবা দেওয়ার মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।

অফিসার্স এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ব্যাংক, সিলেট-এর উদ্যোগে ক্যাশ অফিসার ব্যাচ-২০১৮-এর সিলেট অফিসে যোগদান উপলক্ষে আয়োজিত বরণ অনুষ্ঠানে নবাগত অফিসারদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
গত সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বাদ সন্ধ্যা ব্যাংকের সম্মেলন কক্ষে এই বরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংক ক্লাব, সিলেট-এর সভাপতি বিনয় ভূষণ রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংক সিলেট অফিসের মহাব্যবস্থাপক জীবন কৃষ্ণ রায়।
এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল হাকিম ও উপব্যবস্থাপক মলয় কান্তি পালের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন উপমহাব্যবস্থাপক শান্তনু কুমার রায়, উপমহাব্যবস্থাপক (ক্যাশ) মেজবাহ উদ্দিন।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুগ্ম ব্যবস্থাপক (ক্যাশ) মো. আশরাফ হোসেন, উপব্যবস্থাপক মো. কয়েছুর রেজা চৌধুরী, আব্দুল কাইয়ুম, সহকারী ব্যবস্থাপক রনজিত চন্দ্র মালাকার এবং সংবর্ধিতদের মধ্য থেকে অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন ক্যাশ অফিসার জুয়েল কুমার সাহা। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন যুগ্ম ব্যবস্থাপক এ টি এম আব্দুল্লাহ। অনুষ্ঠানের শুরুতে নবাগত ক্যাশ অফিসারদেরকে ফুল, কাপ এবং সম্মাননা ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করে নেন প্রধান অতিথি বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. সাজ্জাদ হোসেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মো. সাজ্জাদ হোসেন যেকোনো প্রয়োজনে নবাগত অফিসারদের সার্বিক সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মহাব্যবস্থাপক জীবন কৃষ্ণ রায় বলেন, তোমরা অত্যন্ত ভাগ্যবান যে, বাংলাদেশ ব্যাংকের মত মর্যাদাশীল প্রতিষ্ঠানে তোমরা নিজেদেরকে একীভূত করেছো। তোমাদের মেধা, মন ও মননকে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজে লাগাতে পারলে একটি সুন্দর সমাজ বিনির্মাণ হবে বলে আমি আশাবাদী।
সভাপতির বক্তব্যে বিনয় ভূষণ রায় বলেন, লক্ষ লক্ষ প্রতিযোগিকে পেছনে বাংলাদেশ ব্যাংকে তোমরা নিজেদের আসন তৈরী করে নিয়েছো। জাতি যাতে সঠিক সেবা পায়, সেই লক্ষ্যে তোমাদেরকে দায়িত্ব পালন করতে হবে। বড়দের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোসহ পরামর্শ নিয়ে সততা ও দক্ষতার সাথে কাজ করতে হবে।