বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কোম্পানীগঞ্জে আ.লীগ নেতাদের বিরুদ্ধে পুলিশের ‘গায়েবী’ মামলা



ডেস্ক রিপোর্ট: সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আব্দুল বাছিরের পরিবারের সদস্যদের উপর আবারো মামলা করেছে পুলিশ। মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী শামীম আহমদকে। ঘটনা ছাড়াই মামলা দায়ের করায় ক্ষোভ বিরাজ করছে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা জুড়ে। পুলিশের দায়ের করা মামলাকে মিথ্যা মামলা দাবি করে উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আব্দুল বাছির বলেছেন- কাল্পনিক মামলা দিয়ে তার পরিবারকে দমিয়ে রাখার চেষ্ঠা করা হচ্ছে। এতে প্রমান হয়েছে ওসি আব্দুল হাই আক্রোশমুলক ভাবে এই মামলা দায়ের করেছেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল হাইয়ের প্রত্যাহার সহ কয়েকটি দাবিতে রোববার উপজেলার পাড়ুয়া এলাকায় পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের নেতারা সমাবেশের ডাক দেন। ওই সমাবেশ বানচাল করতে রাতেই সাদা পোশাকধারী পুলিশ পাঠান ওসি আব্দুল হাই। পর দিন ওসির বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্তে যাওয়া ডিআইজি অফিসের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাজিব কুমার দে-কে সম্মান জানিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল বাছির আয়োজকদের অনুরোধ করে সমাবেশ স্থগিত রাখেন।

কিন্তু রাতেই কোম্পানীগঞ্জ থানার এসআই খায়রুল বাশার বাদি হয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিরের পরিবারের সদস্যদের আসামি করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলায় অভিযোগ করা হয়- রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ ও যান চলাচলে বাধা দেওয়া হয়েছে। মামলায় কোম্পানীগঞ্জের পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আমদানী-রপ্তানীকারক ব্যবসায়ী হাজী শামীম আহমদ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি বিলাল হোসেন, যুবলীগ নেতা কেফায়েত উল্লাহ, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সাংবাদিক ফোরামের সাধারন সম্পাদক সফাত উল্লাহ, পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী রাশা, আওয়ামী লীগ নেতা হাছান চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য জামাল আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা শাওন মাহমুদ, যুবলীগ নেতা রাসেল আহমদ, আওয়ামী লীগ নেতা আলী হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা শরীফ আহমদ, উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারন সম্পাদক নুরুল ইসলাম, যুবলীগ নেতা সুজন মাহমুদ, যুবলীগ নেতা সোহেল আহমদ, যুবলীগ নেতা আব্দুল কাদির, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি ও শিক্ষানবীশ আইনজীবী সাইফুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য জুয়েল আহমদ ও পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ক্রীড়া সম্পাদক জুবেল আহমদ তালহাকে আসামি করা হয়।

কোম্পানীগঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান ও স্থানীয় উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্ঠা আলহাজ¦ আব্দুল বাছির অভিযোগ করেছেন- এজাহারে যে ঘটনার বর্ণনা দেওয়া হয়েছে, ওই দিন এলাকায় এরকম কোনো ঘটনাই ঘটেনি। ওসি আক্রোশমুলক এই মামলা দায়ের করে কোম্পানীগঞ্জ আওয়ামী লীগে বিভেদ সৃষ্টির মাধ্যমে সংঘাতের সূচনা করতে চাইছেন। তিনি গায়েবী ঘটনায় দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের জন্য উর্র্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।

এদিকে- পশ্চিম ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী শামীম আহমদ জানিয়েছেন এই অনুষ্ঠান সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না। কিংবা তিনি আমন্ত্রিতও ছিলেন না। ব্যবসায়ীক কাজে তিনি সিলেটে বসবাস করছেন। কয়েক দিন আগে ওসির বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা করায় তার বিরুদ্ধে আক্রোশমুলক ভাবে এই মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে দাবি করেন শামীম আহমদ। ওসির বিরুদ্ধে সিলেটের আদালতে দায়ের করা মামলা এখন দুর্নীতি দমন কমিশনে তদন্তাধীন রয়েছে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে জানতে সিলেটের পুলিশ সুপার ও কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসিকে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।