বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
চুনারুঘাটে বালি উত্তোলন নিয়ে গ্রামবাসীর প্রতিবাদ সমাবেশ  » «   জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলায় রায়ের বিষয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর আদেশ  » «   মহিউদ্দিন শিরু’র ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত  » «   বিভিন্নক্ষেত্রে বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশ এক রোল মডেল: শিক্ষামন্ত্রী  » «   চুনারুঘাটে পরিত্যক্ত টং দোখান থেকে পেট্রোল বোমা ও ককটেল উদ্ধার  » «   শেখ হাসিনার নির্দেশনায় সিলেটের উন্নয়নে কাজ করতে চাই: ড. মোমেন  » «   জগন্নাথপুরে গাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা  » «   জগন্নাথপুরের সুন্দর আলী পুত্রের কান্ড  » «   ভাষা সৈনিক আসাদ্দর আলীর জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   যান্ত্রীক ত্রুটিতে ৫ ঘন্টা ভোগান্তিতে পবিস কমলগঞ্জ জোনালের ৭৫ হাজার গ্রাহক  » «  

সিলেট প্রশাসন যদি বাধা না দিয়ে দুই নাম্বারি করে, তাহলে আমাদের দোষ কি: মেলা আয়োজক



স্টাফ রিপোর্টার: সিলেটে অনুমোদন না নিয়ে চলছে মেলার আয়োজন। প্যাভিলিয়ন ও ফটক তৈরীর কাজও চলছে জোরেশোরে। সিলেট শহরতলীর বটেশ্বর এলাকায় অন্ধ প্রতিবন্ধি শিল্প পণ্য মেলার নামে চলছে এমন আয়োজন। অথচ জেলা প্রশাসক নুমেরি জামান জানিয়েছেন, সিলেটে কোনো মেলা করার অনুমতি দেননি তিনি। মেলার আয়োজন করা নিয়ে নিজেই প্রশ্ন তুলেন তিনি।

এর আগে গত ৩০ আগস্ট থেকে চলে আসছে মেলাঙ্গনে প্যাভিলিয়ন তৈরীর কাজ। জেলা প্রশাসনের অনুমোদন না পাওয়ার পরও মেলার আয়োজন করা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

প্ররতিবন্ধি শিল্প পণ্য মেলার নামে হতদরিদ্রদের চিকিৎসার নাম ভাঙ্গিয়ে মেলায় নামে এমন আয়োজন হতবাক করেছে মানুষকে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সিলেটে বিভিন্ন সময় মেলার নামে জুয়া খেলার আয়োজক আলোচিত মঈন খান বাবলু মেলার তত্বাবধানে রয়েছেন। আর অন্ধকল্যাণ সোসাইটির চেয়ারম্যান এম এ মোশাররফ প্রশাসনের নির্দেশনা উপক্ষো করে পুরোদমে মেলার প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে সংবাদে বিজ্ঞপ্তিও পাঠান।

এ ব্যাপারে অন্ধ কল্যাণ সোসাইটির চেয়ারম্যান এম. এ মোশাররফ বলেন, মন্ত্রনালয়ে আমরা দরখাস্ত দিয়েছি। সেই দরখাস্ত জেলা প্রশাসনের কাছে বিবেচনার জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে অনুমতি এখনো পাননি বলেও স্বীকার করেন তিনি।
গতকাল বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) অন্ধ কল্যাণ সংস্থার নামে জিন্দাবাজারের অনন্যা নেট থেকে একটি সংবাদ প্রচার করা হয়। এ সংবাদের ব্যাপারে অন্ধ কল্যাণ সোসাইটির চেয়ারম্যান এম. এ মোশাররফ কিছুই জানেন না বলে স্বীকার করেন। মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে বিব্রত সৃষ্টিকারীর বিরুদ্ধে ও প্রচারকৃত ইমেইল এবং প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধেও তিনি ব্যবস্থা নিবেন বলেন জানান।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিগত দিনে চিকিৎসা তহবিলের সহায়তার সুযোগ নিয়ে সিলেটে মেলা করেছেন আলোচিত মঈন খান বাবলু ওরফে মেলা বাবলু। নামে-বেনামে বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে ক্ষমতাসীন নেতাদের সঙ্গে নিয়ে এসব মেলার আয়োজন করেন তিনি। ফলে প্রশাসনকে বুঝাতে বেগ পেতে হতো না তাকে। এবারো একই কায়দায় চট্রগ্রামের অন্ধ কল্যাণ সোসাইটির ব্যানারে মেলার আয়োজন করা হয়েছে।
সূত্র জানায়, বানিজ্য মন্ত্রনালয় বছরে কেবলমাত্র আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলার করার অনুমতি দেয় চেম্বার অব কমার্সকে। এই মেলা এবারো হবে অক্টোবরে। কিন্তু এবার ওই মেলায় ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের দায়িত্ব না পাওয়ায় মঈনখান বাবলু অন্ধ কল্যাণ সোসাইটির ব্যানারে প্রতিবন্ধি শিল্প মেলার আয়োজন করেছেন সদর উপজেলার বটেশ্বরে। মেলার আয়োজন করার অনুমতি চেয়ে বানিজ্য মন্ত্রনালয়ে চিঠি দেন অন্ধ কল্যাণ সোসাইটি, চট্রগ্রামের চেয়ারম্যান এম.এ মোশাররফ। কিন্তু বানিজ্য মন্ত্রনালয় অনুমতি দেওয়ার এখতিয়ার হিসেবে সিলেট জেলা প্রশাসনে প্রেরণ করে। আর মন্ত্রনালয়ে করা সেই দরখাস্তের আলোকে ক্ষমতাসীন কয়েক নেতাকে সঙ্গে নিয়ে বাবলু ও মোশাররফ তোড়জোড় করে ইতোমধ্যে মেলার আয়োজন শুরু করেছেন। প্রশাসনকে প্রভাবিত করতে মেলার আয়োজকরা অর্থমন্ত্রীর নামও ব্যবহার করে চলেছেন।
অবশ্য সিলেটের জেলা প্রশাসক নুমেরী জামান বলেন, মেলা করার অনুমতি দেওয়ার প্রশ্নই আসে না। কে বা কারা মেলা করছেন, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
অনুমতি না পেয়ে মেলার আয়োজন সম্পর্কে তিনি বলেন, সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় অনুমতি ছাড়া দু’টি মেলা চলছে। জেলা প্রশাসন যদি সেখানে বাধা না দিয়ে দুই নাম্বারি করে, তাহলে আমরা করলে দোষ কিসের। অনুমতি না দিলে প্রয়োজনে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন করবো।
এ ব্যাপারে জানতে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদের মোবাইলে ফোন দেওয়া হলেও রিসিভ না করায় তাঁর প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।