শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কোতোয়ালী থানার প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত  » «   জগন্নাথপুরে ছাত্রদল নেতাকে ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক করায় ১১ সদস্যের পদত্যাগ !  » «   খাদিমনগরে ইউপি সদস্য দিলুকে জড়িয়ে মিথ্যাচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন  » «   কারবালার আত্মাদান হলো জালিমের সামনে আল্লাহর বাণী প্রচারে সর্বোত্তম দৃষ্টান্ত: রেদওয়ান আহমদ চৌধুরী  » «   খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই বিচার চালিয়ে যাওয়া ন্যায়বিচার পরিপন্থি: ফখরুল  » «   বিশ্বনাথে নারীদের ত্রি-মাসিক সেলাই প্রশিক্ষণের উদ্বোধন  » «   সিলেটে শিশু অপহরণ ও ধর্ষণ : ৬ দিনপর রংপুর থেকে উদ্ধার  » «   সিলেট আদালতে স্বীকারোক্তি : ধর্ষণের পর পানিতে চুবিয়ে রুমিকে হত্যা  » «   ওসমানীনগরে প্রানীসম্পদ ও ভেটেনারি হাসপাতালের নবনির্মিত ভবন উদ্ভোধন  » «   ছাতকে সেচ্ছাশ্রমে কাঁচা সড়ক সংস্কার  » «  

বিয়ানীবাজার থানায় বিত্তশালীদের মামলা রেকর্ড, দিনমজুরের মা লাঞ্ছিত!



বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি:: বিয়ানীবাজারের বাউরভাগে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দু’পক্ষে মৃদু সংঘর্ষের ঘটনায় থানা প্রশাসন বিত্তশালীদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে।

এমনকি মধ্যরাতে পুলিশ ও কয়েকজন যুবক দরিদ্র রাজ্জাকের ঘরে প্রবেশ করে তার মা ও বোনের সাথে অশালীন আচরণ করেছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।

বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও গণমাধ্যম কর্মীদের জানিয়েছেন নির্যাতিত মহিলা বেগম আক্তার (৪০)। পুলিশের এমন আচরণে সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ লক্ষ করা গেছে।
একাধিক সূত্রে জানা যায়, বসতবাড়ির রাস্তায় দেয়াল নির্মাণকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন থেকে রাজ্জাক ও কাশেমের পরিবারের মধ্যে সংঘাত, মামলা পাল্টা মামলার ঘটনা চলে আসছে। তারই জের ধরে গত শনিবার রাত ৮টার দিকে লাউতা ইউনিয়নের বাউরভাগে বিত্তশালী আবুল কাশেম দিনমজুর আব্দুর রাজ্জাকের ছোট ভাই রাসেলকে মারধর করেন।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষে হাতাহাতি ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এতে দু’পক্ষের ৩/৪জন সামান্য আহত হন। তারা সবাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছেন। খবর পেয়ে আব্দুর রাজ্জাক ঘটনাস্থলে এসে প্রতিপক্ষ কাশেমকে ঝগড়ার কারণ জিজ্ঞাসা করলে সে ও তার নিকটাত্মীয়রা কাশেমকে দোকানের ভেতর ঢুকিয়ে বেধড়ক মারপিট করেন।

একপর্যায়ে সে দোকান হতে দৌড়ে বের হয়ে যায়। এ ঘটনার পর দু’পক্ষ বিয়ানীবাজার থানায় এজাহার দায়ের করেন। কিন্তু ইউপি চেয়ারম্যানের আহ্বানে ইউপি সদস্য কবির আহমদ সৃষ্ট ঘটনার আপোষ নিষ্পত্তির চেষ্টা করেন। এতে আমানতের ১০ হাজার টাকা বিত্তশালী কাশেম সাথে সাথে দিলেও দিনমজুর রাজ্জাক দু’টার মধ্যে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

কথামতো তিনি মধ্যস্থতাকারি হাতে ১০ হাজার জমা দেন। এদিকে সৃষ্ট ঘটনাটি নিষ্পত্তির আওতাধীন থাকা সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী পক্ষের আবুল কাশেমের অভিযোগ রোববার পুলিশ আমলে নেয়, মামলা রেকর্ড করে। মামলার এজাহারে রাজ্জাককে মাদকাসক্ত বলা হলেও তিনি সিগারেট পর্যন্ত পান করেননি। অপরদিকে দিনমজুর আব্দুর রাজ্জাকের অভিযোগ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এফআইআর করা হয়নি।
এদিকে আসামী গ্রেফতারের নামে পুলিশ ও কাশেমের লোকজন গত রোববার মধ্যরাতে বসতঘরে ঢুকে রাজ্জাকের গর্ভধারিণী মা বেগম আক্তার ও তার ছোট বোনের সাথে অসামাজিক কার্যকলাপের চেষ্টা করেন। এতে তারা কোনমতে সতীত্ব রক্ষা করলেও পরনের কাপড় ছেড়ে যায়।

তাছাড়া ঘরের মধ্যে রক্ষিত কিছু টাকাও এ সময় অপরিচিত ঐ যুবকরা নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেছেন বেগম আক্তার। তিনি বিষয়টি পরদিন সকালে লাউতা ইউপি চেয়ারম্যান মো. গৌছ উদ্দিন, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও গণমাধ্যম কর্মীদের অবগত করেছেন। অবগত হয়েছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান খান। তিনি নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন এবং অসদাচরণের ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য থানার ওসিকে নির্দেশক্রমে অনুরোধ করেছেন।

এ ব্যাপারে লাউতা ইউপি চেয়ারম্যান গৌছ উদ্দিন বলেন, আমি দু’পক্ষের মারামারির খবর পেয়ে পরদিন সকালে পরিষদের দু’জন সদস্যকে ঘটনাস্থলে পাঠাই। দু’পক্ষ আপোষ মীমাংসায় সম্মত হয়ে আমানতের টাকা জমা দেন। কিন্তু এরই মধ্যে থানা পুলিশ একপক্ষের মামলা এফআইআর করে। তিনি বলেন, অভিযুক্ত রাজ্জাকের মা আমার কাছে পুলিশ ও কয়েকজন যুবকের অশালীন আচরণের বর্ণনা দিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য শোনে আমি নির্বাক, লজ্জিত। তিনি বিষয়টি পুলিশের উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান।

বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহজালাল মুন্সি বলেন, পুলিশ মাদকের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়। আব্দুর রাজ্জাক মাদকাসক্ত হয়ে দোকান ভাংচুর ও লুটপাট করার প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়া গেছে। এজন্য তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, পুলিশ আসামী গ্রেফতারে ঘরে তল্লাশী করেছে। কিন্তু মহিলাদের সাথে খারাপ আচরণ করেনি। হয়তো মামলা থেকে বাঁচতে তারা এখন পুলিশকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।