মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ছাতক দোয়ারায় জাপা’র গ্রীন সিগনাল পেলেন রুহুল আমিন



হাসান আহমদ, ছাতক প্রতিনিধি:: আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৫ ছাতক দোয়ারা বাজার আসনে নতুন মুখ হিসেবে সংসদ সদস্য পদে প্রার্থী
হচ্ছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের আস্থাভাজন ব্যক্তি ছাতকের কৃতি সন্তান যুক্তরাজ্য জাতীয় পার্টির সহ সভাপতি রুহুল আমিন।
জাপা সূত্রমতে, আসন্ন জাতীয় পার্টি মহাজোটে থাকলে কিংবা নতুন কোন জোটে গেলে এ আসনটিতে আর কোনো ছাড় দিতে চান না। আর এই আসনটি ধরে রাখতে প্রবাসী জাতীয় পার্টির অন্যতম নেতা রুহুল আমিন পার্টির হাইকমান্ডের তালিকায় প্রথম স্থানে রয়েছেন।
সাংবাদিকদের সাথে যুক্তরাজ্য থেকে মোবাইলে যোগাযোগ করে এমনটিই নিশ্চিত করেছেন তিনি। জাপা নেতা রুহুল আমিন জানান, ঈদের পরে খুব শিঘ্রই দেশে ফিরছেন তিনি। দেশে এসে তিনি সুনামগঞ্জ -৫ আসনের জাতীয় পার্টির তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভা এবং নির্বাচনী গণসংযোগ করবেন বলে জানা গেছে। পার্টির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ নির্বাচনী এলাকায় জাতীয় পার্টিকে সুসংগঠিত করতে সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠ পর্যায়ে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান সুনামগঞ্জ -৫ আসনের জাপা মনোয়ন প্রত্যাশী সম্ভাব্য সংসদ সদস্য প্রার্থী রুহুল আমিন।

আগামীতে আমরা যে জোটেই থাকি না কেন পার্টির চেয়ারম্যানের সিদ্বান্ত অনুযায়ী এ আসন থেকে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছি। আর ছাতক দোয়ারায় জাতীয় পার্টি (এরশাদ) মনোনীত প্রার্থী অনেকটাই নিশ্চিত।
ইতোমধ্যে তার এলাকার কর্মীদের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে রুহুল আমিনের পোস্টার ও বিলবোর্ড টানাতে দেখা গেছে।
যুক্তরাজ্যের লেবার পার্টির নেতা ও টাওয়ার হ্যামলয়েটস এর বর্তমান কাউন্সিলর রুহুল বলেন, গত কয়েক মাস আগে দেশে তৃণমূল কর্মীদের সাথে সময় দিয়েছি। জাতীয় পার্টির প্রচার প্রচারণা চালিয়েছি এবং সভা সমাবেশ করেছি। পার্টির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আমাকে মাঠ পর্যায়ে কাজ করার জন্য গ্রীন সিগন্যাল দিয়েছেন। শিঘ্রই দেশে ফিরে আবারো মাঠে সক্রিয় হবো। আগামীতে লাঙ্গল প্রতীক পেলে সুনামগঞ্জ -৫ আসনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হবো বলে আমি আশাবাদী।
উল্লেখ্য রুহুল আমিন ছাতক উপজেলার দক্ষিণ খুরমা ইউনিয়নের জাতুয়া গ্রামের বাসিন্দা। রুহুল আমিন কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির সদস্য,
কাউন্সিলার ব্রিটেন শেডওয়েল এলাকা ও প্রতিষ্টাতা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন ফাউন্ডেশন
এবং তার নামে দোয়ারাবাজার পান্ডারগাও ইউনিয়নে একটি গ্রামের নামকরন করা হয় রুহুল আমিন নগর।