রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে আলোকচিত্রী শহিদুল



নিউজ ডেস্ক:: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেপ্তার আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। হাইকোর্টের নির্দেশের পর বুধবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে তাকে ডিবি কার্যালয় থেকে হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালের পঞ্চম তলার ১২ নম্বর কেবিনে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে বলে জানা গেছে।

গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আবদুল বাতেন ঢাকাটাইমসকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আদালতের আদেশ পাওয়ার পর সকাল নয়টার দিকে শহিদুল আলমকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেওয়া হয়।

গত রবিবার রাতে ‘মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট’করার অভিযোগে শহিদুল আলমকে তার ধানমন্ডির বাসা থেকে আটক করে ডিবি পুলিশের একটি দল। পরে রমনা থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে করা একটি মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

সোমবার দৃক গ্যালারির প্রতিষ্ঠাতার সাত দিনের জন্য রিমান্ডে পাঠান ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম মোহাম্মাদ আসাদুজ্জামান নূর। এই আদেশ চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ।

রিটের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার সাত দিনের রিমান্ড আদেশ স্থগিত করেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে তার চিকিৎসার নির্দেশ দেন আদালত। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যে শহিদুল আলমের শারীরিক অবস্থার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়।

হাইকোর্টে শহিদুল আলমের পক্ষে শুনানি করেন ড. কামাল হোসেন, ব্যারিস্টার সারা হোসেন। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী শাহদীন মালিক, ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া, তানিম হোসেইন শাওন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।