মঙ্গলবার, ২১ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর

জগন্নাথপুরে রাস্তা কাটা নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা



মো.শাহজাহান মিয়া, জগন্নাথপুর:: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে গ্রামবাসীর রাস্তা কাটা নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাটি ঘটেছে জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের আলী নগর গ্রামে।

জানাগেছে, গত সোমবার আলী নগর গ্রামবাসীর একমাত্র চলাচলের রাস্তার কিছু মাটি কেটে ফেলেন স্থানীয় রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মজলুল হকের লোকজন।

এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ ও স্থানীয় তপশিল অফিসের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার ২০ জন গ্রামবাসী স্বাক্ষরিত একটি আবেদন জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট প্রদান করা হয়।

১৮ জুলাই বুধবার সরজমিনে দেখা যায়, রাস্তার সামান্য কিছু মাটি কেটে ফেলা হলেও যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়নি। এ সময় আলীপুর গ্রামের লোকজন অভিযোগ করে বলেন, সরকারিভাবে নির্মিত আমরা গ্রামবাসীর একমাত্র চলাচলের রাস্তাটি চেয়ারম্যান মজলুল হকের লোকজন জোরপূর্বক কেটে ফেলার চেষ্টা করলেও জনগণের বাধার মুখে ও পুলিশের হস্তক্ষেপে পুরো রাস্তাটি কাটতে পারেনি।

তবে যে কোন সময় পুরো রাস্তা কেটে ফেলার আশঙ্কায় শঙ্কিত হয়ে পড়েন গ্রামবাসী। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে এ রাস্তা দিয়ে গ্রামবাসী চলাচল করলেও কেউ কোন বাধা দেয়নি। তবে কিছুদিন আগে রাস্তায় গ্রামবাসীর উদ্যোগে নতুন করে মাটি কাটা হলে চেয়ারম্যানের লোকজন তা কেটে ফেলার চেষ্টা করেন।

এ ব্যাপারে সাবেক চেয়ারম্যান মজলুল হক বলেন, আমার মালিকানা জমির ফিসারির পাড় দিয়ে আমাকে না জানিয়ে রাস্তা নেয়া হয়েছে। যে কারণে রাস্তার মাটি কেটে ফেলেছি। স্থানীয় ইউপি সদস্য তেরাব মিয়া বলেন, অনেক ঝামেলা করে রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়েছিল। এখন আবার নতুন করে ঝামেলা দেখা দিয়েছে। রাণীগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা বলেন, সাবেক চেয়ারম্যান মজলুল হকের প্রতিনিধি তাঁর ভাতিজা এমরুল হক গ্রামবাসীর সুবিধার্থে রাস্তার জন্য জমি দিয়েছেন। এখন সাবেক চেয়ারম্যান মজলুল হক তা অস্বীকার করছেন।