রবিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বিশ্বনাথ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও চলে ইভটিজিং



বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইভটিজিংয়ের শিকার হয়েছে এক কলেজ ছাত্রী। উপজেলার রহমাননগর গ্রামের বাসিন্দা ও বিশ্বনাথ মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। সোমবার বিকেল ২টায় দিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডিসপেনসারি কক্ষের সামনে ওই ইভটিজিংয়ের ঘটনাটি ঘটে ।

জানা গেছে, ওই কলেজ ছাত্রী সোমবার দুপুরে তার বড় বোনকে চিকিৎসার জন্য স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার কলেজ ছাত্রীর অসুস্থ বোনকে দ্বিতীয় তলার ভর্তি দেন। পরে কলেজ ছাত্রী নিচে গিয়ে ওষুধ নিয়ে ওয়ার্ডে ফেরার সময় ডিসপেনসারি কক্ষের সামনে আসা মাত্রই দুই বখাটেদের ইভটিজিংয়ের শিকার হন।

এসময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বখাটেদেরকে সনাক্ত করেন। দুই বখাটে হচ্ছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকার কাদিপুর উপরেরচক গ্রামের জমির আলীর পুত্র শামিম আহমদ (২২) ও কাদিপুর গ্রামের মৃত আব্দুল আহাদ’র পুত্র শফি আলম (২৩)। বখাটেদের ইভটিজিংয়ের শিকার হয়ে প্রতিবাদ করে কলেজ ছাত্রী ওয়ার্ডে গেলে, সেখানে গিয়েও কলেজ ছাত্রীকে হুমকি দেয় বখাটেরা।

এদিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইভটিজিংয়ের খবর পেয়ে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামছুদ্দোহা পিপিএম’র নির্দেশে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে আসেন। এসময় পুলিশের কাছেও ঘটনার তথ্য দেন ওই কলেজ ছাত্রী। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই বখাটেরা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। স্থানীয়দের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে প্রায় প্রতি দিনই স্থানীয় বখাটেদের কাছে এভাবেই হয়রানির শিকার হচ্ছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরা ও তাদের স্বজনদেরকে।