মঙ্গলবার, ২১ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর

কানাইঘাটে ফয়সাল আহমদ রাজের কাছে জিম্মি দিঘিরপার গ্রামের মানুষ



কানাইঘাটের আনোয়ার হোসেনের সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার:: সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার দিঘীরপার পুর্ব ইউনিয়নের দিঘীরপার গ্রামের মানুষ স্থানীয় ফয়সাল আহমদ রাজ ও তার সহযোগীদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন। জমি দখল, মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি ও ভয়ভীতি প্রদর্শনের মাধ্যমে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি করেছেন রাজ।

শনিবার দুপুরে সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করেছেন একই গ্রামের মরহুম আজিজুল হক এর পুত্র আনোয়ার হোসেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু জাতীয় যুব পরিষদ’ এর কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক পরিচয় দিয়ে সে ও তার বাহিনী এলাকায় কর্তৃত্ব সৃষ্টি করার চেষ্টা করছে। এলাকার নিরীহ মানুষকে নানাভাবে হয়রানি করে আসছে।

আনোয়ার হোসেন বলেন, গত ২৫ মে তার ভোগদখলকৃত জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা করে ফয়সাল আহমদ রাজ। অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নিজ বাহিনীকে নিয়ে ওই জমির গাছপালা কেটে ফেলে। বাধা দেওয়ায় প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়।
জমি দখল ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমের বিরুদ্ধে গত ৩১ মে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা হাকিম আদালতে ফয়সাল আহমেদ রাজ সহ ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে একটি অভিযোগ দায়ের দায়ের করেন আনোয়ার। যা কানাইঘাট বিবিধ মামলা নং- ৫১/২০১৮। আদালতে মামলা দায়েরের পর কানাইঘাট থানার এএসআই (নিরস্ত্র) চন্দন কুমার ওই জমিতে ফৌজদারি কার্যবিধি আইনের ১৪৪ ধারা জারি করে উভয় পক্ষকে নোটিশ প্রদান করেন।

তিনি বলেন, সম্প্রতি ফয়সাল আহমদ রাজ দিঘীরপার গ্রামের নিরীহ লোকজনকে গ্রামছাড়া করার উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী বাহিনীর মাধ্যমে বিভিন্ন হুমকি ধমকি প্রদান করছে। কেউ বাড়াবাড়ী করলে কিংবা কথা মতো জায়গা সম্পদ ছেড়ে না দিলে দেশের বিভিন্ন থানায় মামলা দিয়ে হয়রানি করার হুমকি দিচ্ছে।

আনোয়ার হোসেনের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন স্থানীয় দিঘীরপার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল ওয়াহিদ চৌধুরী। গত ৫ ডিসেম্বর ওয়াহিদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে কানাইঘাট থানায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গালিগালাজ করার অভিযোগ আনেন রাজ।

পরে থানা পুলিশ তদন্ত করে সত্যতা না পাওয়ায় অভিযোগটি গ্রহণ করেনি। স্থানীয়দের হয়রানি করতে রাজের সহযোগী দিঘীরপার গ্রামের জালাল উদ্দিন জলাই নিরীহ জনসাধারণের বিরুদ্ধে কানাইঘাট থানায় আরেকটি মিথ্যা মামলা দিয়েছে বলে জানান আনোয়ার হোসেন।
এ অবস্থায় রাজবাহিনীর কাছে জিম্মি এলাকার লোকজনকে হয়রানি থেকে মুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে সুদৃষ্টি কামনা করেন তিনি। একই সাথে ফয়সাল আহমদ রাজসহ তার সহযোগীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন আনোয়ার হোসেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় মুরব্বি আব্দুল্লাহ, আব্দুল হাফিজ, মিছবাউল ইসলাম, আব্দুর ছালাম, নজরুল ইসলাম, মাতাব উদ্দিন ও জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।