রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে সিলেট কওমি মাদরাসা বোর্ডের শুকরিয়া মিছিল  » «   বিশ্বনাথে গোপন বৈঠক কালে ১৭ জামাত নেতা আটক  » «   হোটেল শ্রমিক উইনিয়নের বিক্ষোভ মিছিল  » «   জেলা পরিষদের অর্থায়নে সংযোগ সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন-এড. লুৎফুর রহমান  » «   জগন্নাথপুরে সংঘর্ষের ঘটনায় ২৫ জনের জামিন হওয়ায় এলাকায় স্বস্তি  » «   বিশ্বনাথে মাজার নিয়ে মিথ্যা অপপ্রচার বন্ধের দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন  » «   সিলেট-৫ আসনের সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী ফয়জুল মুনির চৌধুরী’র মোটর সাইলেক শোডাউন  » «   চারখাই ত্রিমুখে ‘শহীদ নাহিদ চত্বর’র উদ্বোধন করলেন শিক্ষামন্ত্রী  » «   কমলগঞ্জের ধলই চা বাগানে মস্তকবিহিন নারীর লাশ উদ্ধার  » «   ওসমানীনগরে বাস চাপায় নিহত ২ : আহত ২  » «  

জগন্নাথপুর পৌরসভা ভবনের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে



জগন্নাথপুর প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌরসভা ভবনের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে। তা দেখে পৌর নাগরিকদের মধ্যে স্বস্থি বিরাজ করছে।
জানাগেছে, গত প্রায় এক বছর আগে সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে আড়াই তলা বিশিষ্ট জগন্নাথপুর পৌরসভা ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এ কাজ পায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আতাউর রহমান খান। তবে কাজ শুরু হওয়ার কয়েক মাস পর টাকার অভাবে কাজ থেমে গিয়েছিল। এখন আবার দ্রুত কাজ এগিয়ে চলছে।

১০ জুলাই মঙ্গলবার পৌরসভা ভবনের প্রথম তলার ছাদ ঢালাই কাজের উদ্বোধন করেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র শফিকুল হক। এ সময় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আতাউর রহমান খান এর ঠিকাদার গোলাম কবির আহমদ চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার রুবেল আহমদ, প্যানেল মেয়র-২ সুহেল আহমদ, পৌর সচিব মোবারক হোসেন, পৌর কাউন্সিলর আবাব মিয়া, দিপক গোপ, পৌর প্রকৌশলী সতীশ গোস্বামী সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে-দীর্ঘ প্রায় এক বছর ধরে ভাড়াটে ছোট ভবনের অস্থায়ী কার্যালয়ে পৌরসভার কার্যক্রম চলছে। এতে জায়গা সংকটের কারণে নাগরিক সুবিধা পেতে নানা ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে পৌর নাগরিকদের। তাই নতুন পৌর ভবনের নির্মাণ কাজ এগিয়ে যাওয়ায় পৌর নাগরিকদের মধ্যে স্বস্থি ফিরে এসেছে।

এ ব্যাপারে পৌর প্রকৌশলী সতীশ গোস্বামী বলেন, পৌর ভবন নির্মাণ কাজের জন্য সাড়ে ৩ কোটি টাকা সরকার বরাদ্দ দিলেও ইতোমধ্যে ২ কোটি টাকা পাওয়া গেছে। এর মধ্যে টাকার অভাবে এমনিতেই কয়েক মাস কাজ বন্ধ ছিল। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, যথা সময়ে বাকি দেড় কোটি টাকা পাওয়া গেলে আগামী ৩ মাসের মধ্যে কাজ শেষ হয়ে যাবে। তখন নতুন পৌর ভবনে পৌরসভার কাজ চালু হলে নাগরিকদের আর কোন ভোগান্তি হবে না।