শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
অংশগ্রহণমূলক জাতীয় নির্বাচন চায় ইইউ  » «   ছাতকে পানিতে ডুবে দু’বোনের মৃত্যু  » «   বিমানবন্দরে গণসংবর্ধনা: যুক্তরাজ্যে সংক্ষিপ্ত সফর শেষে দেশে ফিরলেন মিসবাহ সিরাজ  » «   জৈন্তাপুরে তথ্য অধিকার বাস্তবায়ন ও পরীবিক্ষণ উপজেলা কমিটির সভা  » «   প্রচন্ড গরমে পুড়ছে জগন্নাথপুর  » «   সিলেটে কাউন্সিলর প্রার্থীর প্রচারণায় হামলা : আহত তিন  » «   নির্বাচন ঘিরে নিরাপত্তা: উদ্বেগ, উৎকন্ঠায় সিলেট নগরবাসী  » «   এইচএসসি পরীক্ষায় বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ’র ধারাবাহিক সাফল্য  » «   কামরানের নৌকার সমর্থনে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে সভা  » «   আদালতপাড়া ও আখালীয়া এলাকায় টেবিল ঘড়ির সমর্থনে গণসংযোগ  » «  

কমলগঞ্জে নলকুপের পানিতে বিষ মিশিয়ে প্রাণনাশের অভিযোগ



আসহাবুর ইসলাম শাওন, কমলগঞ্জ:: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় জমি জমার বিরোধের জের ধরে রাতের আঁধারে নলকুপের ভেতরে পানিতে বিষ মিশিয়ে প্রাণনাশের চেষ্টা করার অভিযোগ উঠেছে।
ঘটনাটি ঘটেছে কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের লংগুরপাড় এলাকায় বাংলাদেশ দূর্নীতিদমন কমিশন (দুদক) এ কর্মরত বশির উদ্দিনের বাড়ীতে।

মঙ্গলবার (৩ জুলাই) দুপুরে লংগুরপাড় বশির উদ্দিনের বাড়ীতে গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের সাথে আলাপকালে জানা যায়, গত সোমবার রাতের কোন এক সময় দূষ্কৃতিকারীরা টিউবওয়েলের ভেতরে বিষ ঢেলে যায়।

সকালে পরিবারের লোকজন টিউবওয়েল থেকে পানি আনতে গেলে পানির মধ্যে বিষের গন্ধ আসে। পরে পানির ঘ্রান নিয়ে দেখা যায় বিষের গন্ধ টিউবওয়েলর পানি থেকেই আসছে। তারপর থেকে পরিবারের লোকজন আর এই পানি ব্যবহার করছেন না। এ বিষয়ে মৃত সিদ্দেক মিয়ার পুত্র বাংলাদেশ দূর্নীতিদমন কমিশন (দুদক) কর্মরত বশির উদ্দিনের সাথে মুঠোফোন (০১৭১২-৮৫৪৫৩৫) আলাপ কালে তিনি অভিযোগ করে বলেন,আমাদের পার্শ্ববর্তী মৃত রহিম উল্ল্যার পুত্র হায়দার আলী গংদের সাথে আমাদের জায়গা সম্পদ নিয়ে বিরোধ চলছে।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি পুস্প কুমার কানু বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। পরে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো.রফিকুর রহমানের নিকট বিচার প্রার্থী হলে তিনি হায়দার আলী গংদের ডাকান বিষয়টি নিষ্পত্তি করে দিতে। তাতে রাজী হলেও পরে বিচার সালিশে হায়দার আলী গংরা উপস্থিত হয়নি। আমি দূর্নীতিদমন কমিশন দুদকে ও আমার ছোট ভাই কুতুব উদ্দিন এয়ারপোর্টে কর্মরত। আমরা এলাকার বাহিরে থাকার এ দূষ্কৃতিকারীরাই আমাদের পরিবারের প্রাণহানী ঘটানোর জন্যই এমন ন্যাক্কার জনক কাজ করতে পারে।

এ বিষয়ে কমলগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এদিকে ঘটনার বিষয়ে হায়দার আলীর বক্তব্য জানতে তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে হায়দার আলীর ছেলে জমসেদ এর সাথে আলাপ করলে তিনি বলেন,বশির উদ্দিনের কাছ থেকে এক শতক জায়গা কিনে ছিলাম। সে জায়গা বুঝিয়ে দিলে ও কাগজ করে দেননি। এনিয়ে বিরোধ থাকলে ও নলকূপে বিষ দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি আরো বলেন,আমাদের পরিবারকে হয়রানি করার উদ্দ্যেশে এই অভিযোগ উত্থাপন করেছেন। কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো.মোক্তাদির হোসেন পিপিএম এর সাথে আলাপ কালে তিনি জানান,আমরা এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি আসলে এটা বিষ কিনা তা খতিয়ে দেখার জন্য লোক যাচ্ছে। প্রামান পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।