বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিক হাসপাতাল ছেড়ে বাসায় পূর্ণ বিশ্রামে



সাখাওয়াত হোসেন সেলিম, ইউএসএ:: হৃদরোগে আক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান হাসপাতাল ছেড়ে বর্তমানে তার নিউজার্সীর বাসায় পূর্ণ বিশ্রামে রয়েছেন। তবে তিনি অনেকটাই সেড়ে ওঠেছেন। আরো এক সপ্তাহ বাসায় পূর্ণ বিশ্রামে থাকার পরামর্শ রয়েছে ডাক্তারদের।

পুরোপুরি সুস্থতা লাভের পর শিগগিরই তিনি নেতা-কর্মীদের সাথে মিলিত হবেন বলে জানান ইউএসএনিউজঅনলাইন.কমকে। উল্লেখ্য, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রায় এক সপ্তাহ চিকিৎসা শেষে গত সোমবার বেলা ১২টায় ড. সিদ্দিক রহমানকে লং আইল্যান্ডের উইনথ্রপ ইউনিভার্সিটি হসপিটাল থেকে রিলিজ দেয়া হয়। এক্রিট্রিয়াল ফিবরিলেশনে আক্রান্ত ড. সিদ্দিক লং আইল্যান্ডের উইনথ্রপ ইউনিভার্সিটি হসপিটালে কার্ডিওলজি বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. সিনাম নাইড়োর তত্ত্ববধানে সিকিৎসাধীন ছিলেন।

ড. সিদ্দিকুর রহমান জানান, হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর সাক্ষাত বিষয়ে ডাক্তারদের বারণ থাকা সত্ত্বেও তাকে দেখতে যাওয়ার জন্য রীতিমত দীর্ঘ লাইন পড়ে যায় হাসপাতালে। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনসহ বিভিন্ন ষ্টেটের নেতাকর্মীরা তাকে দেখার জন্য হাসপাতালে ভীড় জমান। অনেকে তার স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর নেন টেলিফোনের মাধ্যমে।

বাংলাদেশ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, প্রধানমন্ত্রী তনয় ও আইটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় সহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ তার স্বাস্থ্যের রীতিমত খোঁজ খবর নেন। তার অসুস্থ্যতার খবর শুনে সংসদ অধিবেশন চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী ও স্পীকারের বিশেষ অনুমতি নিয়ে তাকে দেখার জন্য ছুটে আসেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান এমপি।

ড. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, সকলের ভালবাসায় তিনি অবিভুত। তিনি বলেন, অসুস্থ না হলে হয়ত বুঝতেই পারতাম না নেতা-কর্মীরা আমাকে কত ভালবাসেন।
ড. সিদ্দিকুর রহমান তার আশু রোগ মুক্তি কামনাসহ সরাসরি ও টেলিফোনে তার স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি পরিবার এবং দলের পক্ষ থেকে গভীর কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি সকলের কাছে দোয়া চেয়ে আরো বলেন, পুরোপুরি সুস্থতা লাভের পর শিগগিরই তিনি নেতা-কর্মীদের সাথে মিলিত হবেন। রাজনীতিক কর্মকান্ডে পূর্বের ন্যায় সম্পৃক্ত হবেন।