শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কোতোয়ালী থানার প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত  » «   জগন্নাথপুরে ছাত্রদল নেতাকে ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক করায় ১১ সদস্যের পদত্যাগ !  » «   খাদিমনগরে ইউপি সদস্য দিলুকে জড়িয়ে মিথ্যাচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন  » «   কারবালার আত্মাদান হলো জালিমের সামনে আল্লাহর বাণী প্রচারে সর্বোত্তম দৃষ্টান্ত: রেদওয়ান আহমদ চৌধুরী  » «   খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতেই বিচার চালিয়ে যাওয়া ন্যায়বিচার পরিপন্থি: ফখরুল  » «   বিশ্বনাথে নারীদের ত্রি-মাসিক সেলাই প্রশিক্ষণের উদ্বোধন  » «   সিলেটে শিশু অপহরণ ও ধর্ষণ : ৬ দিনপর রংপুর থেকে উদ্ধার  » «   সিলেট আদালতে স্বীকারোক্তি : ধর্ষণের পর পানিতে চুবিয়ে রুমিকে হত্যা  » «   ওসমানীনগরে প্রানীসম্পদ ও ভেটেনারি হাসপাতালের নবনির্মিত ভবন উদ্ভোধন  » «   ছাতকে সেচ্ছাশ্রমে কাঁচা সড়ক সংস্কার  » «  

বিশ্বকাপ থেকে জার্মানির বিদায়



স্পোর্টস রিপোর্ট:: দ্বিতীয় রাউন্ডে যেতে জয় ছাড়া কোনো বিকল্প পথ খোলা ছিল না জার্মানির। সেই লক্ষ্য পূরণ করতে পারলেন না ডিফেন্ডিং বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। যোগ করা সময়ে ২ গোল হজম করে বিদায় নিলেন তারা। তাদের কান্নার ম্যাচে ২-০ গোলের ঐতিহাসিক জয় পেয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। আগের ২ ম্যাচে হারলেও ফুটবল পরাশক্তিকে পরাজিত করে বড় ধরনের আত্মবিশ্বাস নিয়ে দেশে ফিরছেন কোরিয়ানরা।

কাজান এরেনায় শুরু থেকেই দক্ষিণ কোরিয়ার রক্ষণভাগে মুহুর্মুহু আক্রমণে ত্রাস ছড়ায় দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া জার্মানি। প্রথম সুযোগ পায় ৬ মিনিটে। দারুণ এক শট নেন মার্কো রেউস। তবে তা বারের পাশ দিয়ে চলে যায়। ১৪ মিনিটে টনি ক্রুসের দারুণ এক ক্রসে অসাধারণ হেড নেন স্যামি খেদিরা। কিন্তু দুর্ভাগ্য ডিফেন্ডিং বিশ্বচ্যাম্পিয়দের। বল চলে যায় পোস্ট ঘেঁষে।

কাউন্টার অ্যাটাকে ১৯ মিনিটে প্রথম সুযোগ পায় দক্ষিণ কোরিয়া। ফ্রি কিক থেকে দুর্দান্ত শট নেন জাং উ ইয়ং। প্রথম দফায় তা রুখতে পারেননি ম্যানুয়েল নুয়্যার, হাত থেকে ফসকে যায় বল। তা থেকে ফিরতি শট নেন সন হিউং মিন। এবার লুফে নেন স্পাইডারম্যান। পরক্ষণেই কর্নার কিক থেকে ভেসে আসা বলে বজ্রগতির শট নেন সন হিউং। তবে তা বারের ওপর দিয়ে চলে যায়। এরপর আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে এগিয়ে চলে খেলা। তবে গোলমুখ খুলতে পারেনি কেউ। ফলে গোলশূন্য ড্র নিয়ে বিরতিতে যায় দুদল।

বিরতির পর গোল পেতে মরিয়া হয়ে পড়ে জার্মানি। ঘন ঘন আক্রমণে উঠেন চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। এতে খেলা ওপেন হয়ে যায়। কাউন্টার অ্যাটাকে ওঠার সুযোগ পায় দক্ষিণ কোরিয়ায়ও। তবে বেশিরভাগ সুযোগ পেয়েছেন জার্মানরা। কিন্তু ভালো ফিনিশারের অভাবে গোল পাননি তারা। পাল্টা আক্রমণে বেশ ক’টি সুযোগ পায় দক্ষিণ কোরিয়া। তবে একই সমস্যার কারণে ৯০ মিনিট পর্যন্ত গোল পাননি কোরিয়ানরাও। এতে খেলা গোলশূন্য ড্রতে শেষ হবে বলে মনে হচ্ছিল।

তবে নাটকের তখনো বাকি ছিল।