সোমবার, ২০ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
সেই গোপন অস্ত্র প্রদর্শণ করল হিজবুল্লাহ  » «   জগন্নাথপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার  » «   ওসমানীনগরে পশু জবাই করার সরঞ্জামাদী তৈরীতে ব্যস্ত কামারিরা  » «   হা‌সিনা সরকার আবারো বিনা ভোটে ক্ষমতায় যাওয়ার নীল নকসা করছে: মিজানুর রহমান চৌধুরী  » «   জগন্নাথপুরে নব-বধূকে এসিড খাইয়ে হত্যার চেষ্টা  » «   সিলেটের সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে গরু নামাচ্ছে চোরাকারবারী সিন্ডিকেট  » «   গোলাপগঞ্জে ১৪ ঘন্টা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, উপজেলা জুড়ে আতংক  » «   রাজু হত্যাকান্ডে জড়িতদের দল থেকে বহিস্কারের দাবি ছাত্রদলের  » «   কমলগঞ্জে ঈদে জমজমাট আদমপুরের গরু মহিষের হাট  » «   সিলেটে ট্রাফিক সপ্তাহে সরকারের রাজস্ব আদায় সোয়া কোটি টাকা  » «  

জগন্নাথপুরে জননী ক্রিকেট ক্লাবের পুরস্কার বিতরণ



মো.শাহজাহান মিয়া, জগন্নাথপুর:: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে জননী ক্রিকেট ক্লাবের উদ্যোগে ইফতার মাহফিল ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১২ জুন মঙ্গলবার জগন্নাথপুর পৌর শহরের বলবল গ্রামের জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে দারুল ক্বিরাত মজিদিয়া ফুলতলী ট্রাস্ট কেন্দ্রের ইফতার মাহফিলের পূর্বে ক্বারী ও উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ উপলক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।

মসজিদের মোতাওয়াল্লি হাজী মিন্তাজ মিয়ার সভাপতিত্বে ও জননী ক্রিকেট ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মাওলানা মফিজ উদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, গ্রামের মুরব্বী দরছ মিয়া, মসজিদ কমিটির সেক্রেটারী সাজাদ মিয়া, কোষাধ্যক্ষ আবদুল মুকিত সৈয়দ মিয়া, জননী ক্রিকেট ক্লাবের সভাপতি ফজলু মিয়া ও কেন্দ্রের নাজিম সাহিদ মিয়া।
সভায় বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রের প্রধান ক্বারী মাওলানা নজরুল ইসলাম, সহকারী ক্বারী আবু খালেদ, আইন উদ্দিন, ইমাম হোসেন, সাদিকুর রহমান, সাইদুর রহমান, হাফিজ বদরুল ইসলাম, হাফিজ ফয়জুর রহমান প্রমূখ।
এ সময় সমাজকর্মী মাসুম আহমদ, টিপু মিয়া, মতিউর রহমান, জাকারিয়া আহমদ, রায়হান আহমদ, ধনাই মিয়া, ফাহিম আহমদ, ডালিম আহমদ, আবদুস সালাম, শিশু মিয়া, মামুন আহমদ, মোবারক হোসেন তুহিন, আবুল কালাম সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শুরুতে কেন্দ্রের ক্বারী ও উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয় এবং পরে ইফতার মাহফিলে এলাকার কয়েক শতাধিক ধর্মপ্রাণ মুসলিম জনতা অংশ গ্রহন করেন।