শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
বন্যায় সবজি খেত বিনষ্ট, কমলগঞ্জে কাঁচা বাজারে আগুন  » «   পাঁচ জনকে পেছনে ফেলে কামরানের মনোনয়ন জয়: নগরীতে আনন্দ মিছিল  » «   সিলেটে দলীয় সমর্থন আদায়ে আ’লীগ-বিএনপি নেতাদের দ্বারে দ্বারে কাউন্সিলর প্রার্থীরা  » «   চুনারুঘাটে রাত পোহালেই আমু চা বাগানের শ্রমিকদের নির্বাচন  » «   সিলেটে পুলিশের সাথে ছাত্রদলের সংঘর্ষ: আটক ১৫  » «   ভারতীয় কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধ, পুলিশসহ নিহত ৬  » «   আ’লীগের নিজস্ব ভবন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   পাঁচ জেলায় সড়কে প্রাণ গেল ৩২জনের  » «   শুভ জন্মদিন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ: এড শাকী শাহ ফরিদী  » «   আরিফকে মনোনয়ন না দিতে নিজ দলের নেতাকর্মীরা একাট্রা  » «  

জাতীয় ও জনস্বার্থ বিরোধী বাজেট প্রত্যাখ্যান করে সিলেটে এনডিএফ’র বিক্ষোভ



জাতীয় ও জনস্বার্থ বিরোধী প্রস্তাবিত ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের বাজেট প্রত্যাখ্যান করে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলা শাখার উদ্যোগে গতকাল ৯ জুন শনিবার সন্ধ্যায় নগরীতে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। কীনব্রিজের সামন থেকে বের হয়ে মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সিটি পয়েন্টে এক সমাবেশে মিলিত হয়।

জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলা শাখার সহ-সভাপতি সুরুজ আলী সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জয়দীপ দাস চম্পু’র পরিচালনায় বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ সিলেট জেলা সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাদেক মিয়া, সহ সাধারণ সম্পাদক রমজান আলী, প্রেস শ্রমিক ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক এ.কে আজাদ সরকার, এনডিএফ সিলেট পূর্বাঞ্চল কমিটির সভাপতি খোকন আহমদ, সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির, সহ সাধারণ সম্পাদক মোঃ আনছার আলী

সমাবেশে বক্তারা বলেন, স্বৈরাচারী রাষ্ট্র ব্যবস্থায় সাম্রাজ্যবাদ ও তার দালালদের স্বার্থ রক্ষাকারী সকল সরকারের বাজেটই জাতীয় ও জনস্বার্থ বিরোধী। বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ-এর দিকনির্দেশনার ভিত্তিতে সাম্রাজ্যবাদ ও তার দালালদের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়ে আমাদের দেশের বাজেট প্রণয়ন হয়ে থাকে। তাই এবারের বাজেট প্রণয়নে এসডিজি’র লক্ষ্য বাস্তবায়নের বিষয়টি গুরুত্ব পাবে।

ফলে সাম্রাজ্যবাদী লগ্নিপুঁজি ও তার দালাল পুঁজির শোষণ আরো তীব্র হবে এবং ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য আরো বৃদ্ধি পেয়ে সামাজিক অস্থিরতাকে আরো বাড়িয়ে তুলবে। শুধু তাই নয় বাজেটের আকার বৃদ্ধির সাথে সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে ভ্যাট, ট্যাক্সসহ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ করের বোঝা। একইসাথে বাজেট পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন না হলেও জনগণের কাছ থেকে ঠিকই জবরদস্তি করে ভ্যাট-ট্যাক্সসহ বিভিন্ন ধরনের কর আদায় করা হয়। শুধু তাই নয় অর্থ বছরের শেষের দিকে এসে উন্নয়ন বাজেট বাস্তবায়নের নামে সরকার দলীয় এমপি-মন্ত্রী, নেতা-কর্মি, আমলাদের লুটপাটের এক মহাউৎসব চলে।

নেতৃবৃন্দ ব্যাংক সেক্টর নিয়ে অর্থমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে বলেন, তার বক্তব্যের মধ্য দিয়ে ব্যাংকিং সেক্টরে লুটপাটকারীদের পক্ষেই তিনি অবস্থান নিয়েছেন। যা মূলত সরকারেরই অবস্থান। অন্যদিকে সকল বাজেটেই আমাদের দেশের কৃষি, শিল্প, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ জাতীয় ও জনস্বার্থের মত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো শুধু উপেক্ষিত হয় না সাম্রাজ্যবাদী প্রভুর স্বার্থে লগ্নিপুঁজির সর্বোচ্চ মুনাফার হাতিয়ারে পরিণত হচ্ছে। কিন্তু প্রতিরক্ষা খাতের বাজেট দিন দিন বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে। সবশেষে নেতৃবৃন্দ বলেন, বাজেটে জাতীয় ও জনস্বার্থ রক্ষার পূর্ব শর্ত হচ্ছে জাতীয় গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ও সমাজ ব্যবস্থা। আজ তাই সকল সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী গণতান্ত্রিক শক্তির দায়িত্ব হচ্ছে প্রচলিত স্বৈরাতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা পরিবর্তনের লক্ষ্যে সংগ্রাম বেগবান করা। বিজ্ঞপ্তি