শুক্রবার, ২২ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর

শাল্লায় মাদক কারবারীদের আক্রমনে কলেজ ছাত্র আহত



সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: শাল্লা উপজেলায় চোলাই মাদক কারবারীরা বেপোরোয়া হয়ে উঠেছে। মাদক বিক্রির প্রতিবাদ করলেই হিংস্র মানবের রুপ ধারণ করে ব্যবসায়ীরা। এলাকাবাসী তাদেরকে লীয়াজু করে চলতে হয়।

না হয় অন্যতায় মামলা হামলার ভয় দেখানো হয় সাধারণ মানুষকে। এরই ধারাবাহিকতায় শাল্লা উপজেলার নারকিলা গ্রামের পাবেল আহমেদ(২২) নামে এক প্রতিবাদী যুবককে হামলা চালায় মাদক কারবারীরা।

শনিবার সকাল ১০ এই ঘটনাটি ঘটে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পার্শ্ববর্তী দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হামলাকারীরা হলেন, করিম মিয়ার ছেলে মো. জিয়া, আঙ্গুর মিয়ার ছেলে রাজিব মিয়া, করিম আলীর ছেলে জজ মিয়া, সেলিম মিয়া। ওদের লোকজন লাটিসোটা ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পাবেলের উপর হামলা চালায়। স্থানীয়রা জানান, পাবেল মাদকের বিরুদ্ধে প্রায়ই প্রতিবাদ করে। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এই বিষয়ে লেখালেখি করে। এরই জের ধরে পাবেলের উপর হামলা চালানো হয়।

আহত পাবেল জানায়, মাদকের প্রতিবাদ করায় প্রায়ই আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরে নিজের জীবনের নিরপত্তার জন্য গত ২৩.০৫.১৮ তারিখে শাল্লা থানায় একটি জিডি করি। এই জিডির প্রেক্ষিতেই আমি দিরাই যাওয়ার পথে রাস্তায় আটক করে আমাকে মারধর করে। এমনকি দেশীয় অস্ত্র কুচা দিয়ে আমার শরীরে ঘা দেয়। আর লাটি দিয়ে আমার মাথায় বাড়ি দিলে আমি মাটিতে পরে যাই। পরে স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করে দিরাই হাসপাতালে ভর্তি করেন। পাবেল আরো জানায়, মাদক কারবারীরা আইনের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করবে বলে হুমকি দিচ্ছে। এমনকি নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করা হবে বলে আমার পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে। তাই আমাদেরকে মাদক কারবারীদের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছি।
তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাইফুল ইসলাম পাবেলের উপর হামলার কথা নিশ্চিত করে জানান, উভয়পক্ষের মধ্যে আহত হয়েছে। আর উভয় পক্ষের আহতরাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তবে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।