শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
বন্যায় সবজি খেত বিনষ্ট, কমলগঞ্জে কাঁচা বাজারে আগুন  » «   পাঁচ জনকে পেছনে ফেলে কামরানের মনোনয়ন জয়: নগরীতে আনন্দ মিছিল  » «   সিলেটে দলীয় সমর্থন আদায়ে আ’লীগ-বিএনপি নেতাদের দ্বারে দ্বারে কাউন্সিলর প্রার্থীরা  » «   চুনারুঘাটে রাত পোহালেই আমু চা বাগানের শ্রমিকদের নির্বাচন  » «   সিলেটে পুলিশের সাথে ছাত্রদলের সংঘর্ষ: আটক ১৫  » «   ভারতীয় কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধ, পুলিশসহ নিহত ৬  » «   আ’লীগের নিজস্ব ভবন উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   পাঁচ জেলায় সড়কে প্রাণ গেল ৩২জনের  » «   শুভ জন্মদিন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ: এড শাকী শাহ ফরিদী  » «   আরিফকে মনোনয়ন না দিতে নিজ দলের নেতাকর্মীরা একাট্রা  » «  

কমলগঞ্জে কারগারে থাকা মাদক সম্রাট জালালের বাড়ী থেকে গাঁজা উদ্ধার



আসহাবুর ইসলাম শাওন, কমলগঞ্জ :: ”চলে যাই যুদ্ধে মাদকের বিরুদ্ধে” এ শপথ নিয়ে পুলিশের দেশব্যাপী মাদক বিরোধী অভিযানের ধারবাহিকতায় (৮ জুন ) মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের ধলাইপাড় গ্রামের কুখ্যাত মাদক সম্রাট জালালের বাড়ী থেকে গাঁজা উদ্ধার করেছে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ।তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়,সম্প্রতিকালে ভানুগাছ চৌমুনী এলাকায় আপ্তাব কমপ্লেক্স ভেতরে কমলগঞ্জ থানার তদন্ত অফিসার ইসলামের নেতৃত্বে এসআই চম্পক দাম সহ পুলিশের একটি দল কুখ্যাত মাদক সম্রাট জালালের দেহ তল্লাশী করে ৩০০ গ্রাম গাঁজা সহ জালালকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। জালাল জেলে থাকায়, সেই সুবাদে তার অবর্তমানে মাদক ব্যবসা পরিচালনা করছে জালালের
স্ত্রী জহুরা বেগম, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার রাত ৮ টায় কমলগঞ্জ থানার পুলিশের এএসআই সুশেন দাসের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ধলাইপাড় গ্রামের কুখ্যাত মাদক সম্রাট জালালের বাড়ীতে অভিযান চালায়,অভিযানকালে জালালের রান্না ঘর থেকে প্রায় এক কেজি পরিমান গাঁজা উদ্ধার করে পুলিশ। এদিকে পুলিশের উপস্হিতি টের পেয়ে জালালের স্ত্রী জহুরা বেগম পালিয়ে যায়।

কমলগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. নজরুল ইসলাম গাঁজা উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,এর আগেও গত বছরের ৯ আগস্ট প্রায় এক কেজি গাঁজাসহ জালালের স্ত্রী জহুরা বেগম (৩২) পুলিশের হাতে আটক হয়েছিল। তখন জালাল পালিয়ে যাওয়ায়, জালাল ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য আইনে মামলা একটি মামলা হয় এবং আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরন করা হয়েছিল তার স্ত্রীকে।সে আবার জামিনে বেড়িয়ে এসে মাদক বিক্রিতে জড়িয়ে পড়ে।আবারও তার বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য আইনে মামলার দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।