মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সিলেটে নারীদের জন্য প্রথম পাবলিক টয়েলেটের উদ্বোধন



কয়েক বছরের মধ্যে সিলেট আধুনিক নগরী: মেয়র আরিফ
স্টাফ রিপোর্টার:: কয়েক লাখ লোকের সিলেট নগরীতে এতোদিন পাবলিক টয়লেট ছিলো মাত্র দুটি। তাও কেবল পুরুষদের ব্যবহার উপযোগী। গতকাল বৃহস্পতিবার নগরীতে নারী-পুরুষ উভয়ের ব্যবহার উপযোগী প্রথম পাবলিক টয়লেট চালু করা হলো। নগরীর চৌহাট্টায় বহুজাতিক সেবা সংস্থা ‘ওয়াটার এইড’ এবং এইচ এন্ড এম ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় সিলেট সিটি কর্পোরেশন এই পাবলিক টয়লেট নির্মাণ করে।

বিকেলে নবনির্মিত এই পাবলিক টয়লেটের উদ্বোধন করেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আগামী কয়েকবছরের মধ্যে সিলেট হবে একটি আধুনিক ও স্বাচ্ছন্দে বসবাসযোগ্য নগরী। যার কাজ ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে।
মেয়র বলেন, সিলেট মহানগরকে একটি বসবাসযোগ্য নগর উপহার দিতে নগরীর জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে আরো পাবলিক টয়লেট স্থাপন করা হবে। চৌহাট্টায় স্থাপিত পাবলিক টয়লেট মানুষের কাছে জনপ্রিয় হলে শীঘ্রই কদমতলীসহ জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করা হবে আরো কয়েকটি পাবলিক টয়লেট’।

সিলেট নগরীর চৌহাট্টা থেকে আম্বরখানা সড়কের পশ্চিমপাশে (আলিয়া মাদ্রাসার পিছনে) লাল আর সাদা রঙের মিশেলে নির্মিত পাবলিক টয়লেট দৃষ্টি কাড়ছে সবার। ফলক উন্মেচন ও ফিতা কেটে পাবলিক টয়লেটের আনুষ্টানিক উদ্বোধন করেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। পরে সিসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী আলী আকবরর মোনাজাত পরিচালনা করেন।

এসময় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, বৃহৎ আয়তনের এই নগরীতে এতোদিন মাত্র দুটি পাবলিক টয়লেট ছিল। এর একটি কাজিরবাজার, অন্যটি সুরমা নদীর তীরে। এ দুই পাবলিক টয়লেট আবার পুরুষদের ব্যবহার উপযোগী। অর্থাৎ, নারীদের জন্য ছিল না আলাদা কোনো পাবলিক টয়লেটের ব্যবস্থা। এই বিষয়টি বিবেচনায় এনে নগরীতে তিনটি আধুনিক পাবলিক টয়লেট নির্মাণের উদ্যোগ নেয় সিটি কর্পোরেশন। উদ্বোধনী অনুষ্টানে সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান, প্রকৌশলী আলী আকবর ছাড়াও সিসিকের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা উপস্থিত ছিলেন।