সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

গোলাপগঞ্জে মোটরসাইকেলসহ ৩ চোর আটক



আজিজ খান, গোলাপগঞ্জ:: গোলাপগঞ্জে বাসার নিচ থেকে মোটরসাইকেলে তালা ভেঙ্গে চুরি করে পালিয়ে যাওয়ার পথে ৩ চোর জনতার হাতে ধরা পড়েছে। এসময় চুরদের কবল থেকে মোটরসাইকেলটি ও উদ্ধার করা হয়।

প্রাপ্ত সংবাদে জানা যায়, গত রোববার এম সি একাডেমীর প্রাইমারী শাখার শিক্ষক পৌর এলাকার ঘোগারকুল গ্রামের অধিবাসী মাহমুদুল হাসানের ভাড়া বাসা ফুলবাড়ী পূর্বপাড়ায় ৬ তলা বিল্ডিং এর নিচে নিজ ব্যবহৃত মোটরসাইকেল (সিলেট ল ১১-৮৬৬৪) রেখে উপরে অবস্থান করলে রাত অনুমান সাড়ে ৯টায় দেখতে পান নিচ থেকে কে বা কাহারা তার মোটর সাইকেলটি নিয়ে যাচ্ছে। তিনি দ্রুত নিচে নেমে সিলেট জকিগঞ্জ সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে লোকজনকে বিষয়টি অবহিত করতে থাকেন।

এসময় নিজ বাড়ী থেকে গোলাপগঞ্জে অপর একটি মোটর সাইকেল যোগে আসছিলেন দৈনিক শুভ প্রতিদিনের গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি আব্দুল আজিজ। তখন মাহমুদুল হাসান বিষয়টি আব্দুল আজিজ কে অবহিত করলে আজিজ মাহমুদুল হাসানকে নিয়ে মোটরসাইকেল চুরদেরকে ধরতে তাদের পিছু ধরেন। এক সময়ে তারা দেখতে পান তিন চুর মোটরসাইকেলটি নিয়ে দক্ষিণ সুরমার বাইপাস এলাকা ক্রস করছে।

বিষয়টি এর পূর্বে মোগলাবাজার ও গোলাপগঞ্জ থানাকে অবহিত করা হলে মোগলাবাজার থানার টহলরত পুলিশ দলও বাইপাস এলাকায় অবস্থান নেয়। এসময় চুর চক্রকে ধরতে মোগলাবাজার থানার এসআই জলিল সিগন্যাল দিলে তারা সিগন্যাল অমান্য করে সামনের দিকে অগ্রসর হতে থাকলে আব্দুল আজিজ তার মোটরসাইকেল দিয়ে তখন চুরদের মোটরসাইকেলে খুব জুরে ধাক্কা দেয়। এতে তিন চুর মোটর সাইকেলসহ উল্টে পড়ে।

এসময় আশপাশের লোকজন ও পুলিশ চুরদের ঝাপটে ধরে তাদের কবল থেকে মোটর সাইকেল উদ্ধার করে তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে। ধৃতচুর চক্রের সদস্যরা হল গোলাপগঞ্জ উপজেলার উত্তর কানিশাইল গ্রামের ছানু মিয়ার পুত্র সাজ্জাতুল ইসলাম শাহীন(২০), আব্দুল শুকুরের পুত্র রুবেল আহমদ (২৫), পৌর এলাকার টিকরবাড়ী গ্রামের মলিক মিয়ার পুত্র ইমরান আহমদ নাবিল (২০)। গোলাপগঞ্জ থানায় তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তারা তাদের এক গড ফাদারের নাম উল্লেখ করে বলে সে মোটরসাইকেলটি ঐবাসার কাছ থেকে এনে তাদের হাতে তুলে দিয়েছে।

চোর চক্রের দেয়া তথ্য মতে ঐ গড ফাদারের পরিচয় পুলিশ উদ্ধার করে ছবিও সংগ্রহ করেছে বলে জানা যায়। অনেকের ধারনা ধৃতরা যেসব তথ্য দিয়েছে তার আলোকে পুলিশ অগ্রসর হলে গোলাপগঞ্জের মোটরসাইকেল চোর চক্রের তথ্য পাওয়া যাবে। পুলিশও বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়। এব্যাপারে মোটরসাইকেলের মালিক মাহমুদুল হাসান বাদী হয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় ঘটনার পর পরই অথ্যাৎ রোববার রাতে একটি মামলা দায়ের করেছেন।