সোমবার, ২০ অগাস্ট ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর

গোয়াইনঘাটে নির্দোষ জনপ্রতিনিধিকে হত্যা মামলা থেকে অব্যাহতি দানে পুলিশ সুপার হস্তক্ষেপ কামনা২



ডেস্ক রিপোর্ট:: গোয়াইনঘাটে নির্দোষ পাথর ব্যবসায়ী গোয়াইনঘাট উপজেলার পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ড মেম্বার আতাউর রহমান আতাই ও পাথর ব্যবসায়ী মাতাবুর রহমান মাতাইকে উপজেলার লাবু গোচারণ ভূমিতে ফুটবল খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে নিহত নূরুল ইসলামের হত্যা মামলা থেকে অব্যাহতি দানে সিলেট পুলিশ সুপার বরাবরে আবেদন করেছেন নুর হোসেন এ্যাপলু। তিনি অভিযুক্ত আতাউর রহমান আতাই ছেলে ও মাতাবুর রহমান মাতাইর ভাতিজা। গত ১৭ মে তিনি এ আবেদন করেন।

আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, গত ১১মে উপজেলার লাবু গোচারণ ভূমিতে ফুটবল খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে আহত নুরুল ইসলাম ১৫ মে নিহত হন। এ হত্যাকান্ডকে অন্যখাতে প্রবাহিত করতে, রাজনৈতিক, নির্বাচনী ও ব্যবসায়িক প্রতিদ্বন্দ্বি একটি মহলের প্ররোচনায় নুর হোসেন অ্যাপলুর পিতা ও চাচাকে মামলার মিথ্যা আসামী করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে তাদের কোন সম্পৃক্ততা নেই।

আবেদনে তিনি আরো উল্লেখ করেন, গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ ঘটনার প্রাথমিক তথ্যের সত্যতা যাচাই না করেই এ মামলা গ্রহণ করেছে। তাই জনপ্রতিনিধি ও নিরপরাধ লোকদের আইনী হয়রানীর শিকারের পাশাপাশি প্রকৃত দোষীদের পার পেয়ে যাচ্ছে। উচ্চ পর্যায়ে তদন্ত করলে এর সত্যতা বেরিয়ে আসবে এবং নির্মম এ হত্যাকান্ডের প্রকৃত রহস্য উদঘাটন-সহ প্রকৃত খুনীরা শাস্তি পাবে। তা না হলে কিছু স্বার্থান্বেষী অসৎ লোকের ফায়দা হাসিল হবে অন্যদিকে নির্দোষ ব্যক্তিরা শাস্তি পাবে। তাই অ্যাপলু এ মামলার উচ্চপর্যায়ের তদন্তের মাধ্যমে তার পিতা জনপ্রতিনিধি আতাউর রহমান আতাই ও তার চাচা মাতাবুর রহমান মাতাইকে অব্যাহতির জন্য পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। মামলার সংযুক্ত কপি তিনি ডিআইজি অব পুলিশ সিলেট রেঞ্জ বরাবরেও প্রেরণ করেন।