শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সাবেক কাউন্সিলর সেলিম গ্রুপের কর্মী সৌরভ ইয়াবাসহ আটক, জেলে প্রেরণ



স্টাফ রিপোর্ট:: সিলেট নগরীর উপশহর থেকে ইয়াবাহ সহ ছাত্রলীগকর্মী সৌরভ আটক করেছে পুলিশ। সৌরভ সাবেক কাউন্সিলর সালেহ আহমদ সেলিম গ্রুপের কর্মী।

পুলিশ তাকে আটকের পর সাবেক ওই কাউন্সিলর অনেক দৌড় ঝাঁপ দিয়েছেন বিষয়টি ধামাচাপা দিতে। থানা পুলিশের সাথে কাউন্সিলরের গভীর সর্ম্পক, এমন কথা লোক সমাজে মাশুর।

তারপরও সৌরভ মুক্ত হতে পারেনি। তাই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে সৌরভকে নিয়ে কোন খেলা শুরু হয়েছে। প্রতিপক্ষ গ্রুপের লোকজন মনে করছেন, সাপ হয়ে কামড় মারেন, ওঝা হয়ে ঝাঁড়েন সেলিম। সৌরভকে আটকের বিষয়টি প্রতিপক্ষের উপর চাপিয়ে দিয়ে নতুন কোন হিংস্যাত্বক খেলায় নেমে পড়তে পারেন তিনি। অন্যতায় সৌরভ যেমন ঘনিষ্ট, তেমনি থানা-পুলিশও ঘন্ষ্টি ওই কাউন্সিলরের।

তাই সেলিম গ্রুপের কর্মীরা মনে করে, থানা পুলিশ তাদের বসের নিয়ন্ত্রনে, তারা যেমন খুশি তেমন নাচতে পারবে অন্তত সেলিম এর সাথে থাকলে। কারন সেলিমও পুলিশের সাথে তার সখ্যতা সম্পর্কের গভীরতা কর্মীদের নিকট তুলে ধরে নিজের ক্ষমতা জাহির করেন। প্রায়ই একান্ত খোশ গল্পে মেতে উঠেন পুলিশের কিছু সদস্যদের সাথে।

এতে করে কর্মীরা আশ্বস্ত হয়, নেতার সর্ম্পক যে রিয়েলি। যেকারনে সৌরভ ইয়াবায় জড়িয়ে যায়নি একদিনে, দীর্ঘদিন থেকে ঘুরছে ফিরেছে ছায়া সংগি হয়ে সাবেক ওই কাউন্সিলরের সাথে। কারন ছাগল নাচে খুটির জোরে। সৌরভও তার খুটির জোর বেপরোয়া হয়েছে। সৌরভ আটক অভিযানে থাকা এএসআই মো: হেলাল উদ্দিন বলেন, সৌরভকে আটক করতে সমর্থ হলেও তার অপর সংগি পালিয়ে যায়।

সে ছাত্রলীগের সাথে জড়িত কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, সৌরভ আটকের পর সাবেক কাউন্সিলর সেলিম তার ব্যাপারে খোজ খবর নিয়েছেন, তার সর্ম্পকের কথা বলেছেন। অভিযানে থাকা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকতা বলেন, মুখোশধারী রাজনীতিক নেতাদের খুশি করেই সৌরভের মতো ছেলেগুলো মাদক গ্রহন ও মাদক ব্যবসায় বেপরোয়া হয়ে উঠে। ইয়াবা এখন অভিজাত নেশা। নেতারাও অভিজাত ! তাই সৌরভদের আশ্রয়দাতারা মুখোশের আড়ালে ভদ্র ও ক্ষমতাশালী।

বৃহস্পতিবার রাতে ৩০ পিস ইয়াবাসহ ছাত্রলীগ কর্মী সৌরভকে গ্রেফতার করে শাহপরান থানা পুলিশ। এসআই রিপটন পুরকায়স্থের নেতৃত্বে অভিযানে পলিথিন দিয়ে মোড়ানো ৩০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয় তার কাছ থেকে। সৌরভ গোলাপগঞ্জ থানাধীন করগাঁও গ্রামের ফারুক আহমদের ছেলে। বর্তমানে সে উপশহর জি-ব্লকের ৬নং রোডের ১১৭ নং বাসার বাসিন্দা। সৌরভ বিগত দিনে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল, গত কয়েক মাস ধরে সালেহ আহমদ সেলিম গ্রুপে সক্রিয়।

শাহপরান থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আক্তার হোসেন বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে ইয়াবাসহ সৌরভ কে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে ইয়াবাগুলো বিক্রির জন্য অপেক্ষা করার খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালানো হয়। গ্রেফতারকৃত সৌরভ বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। পরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় শাহপরান থানার এসআই রিপটন পুরকায়স্থ বাদী হয়ে থানায় শুক্রবার মাদক আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৮ (১৮-০৫-১৮)।