শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
এই মুহুর্তের খবর
বাংলাদেশ ভবনের উদ্বোধন করলেন হাসিনা ও মোদি  » «   দেড় কোটি টাকা আত্মসাৎ: ওসমানীর সাবেক উপ-পরিচালক ডা. ছালামসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা  » «   কান্দিগাঁ ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা  » «   সাংবাদিকদের সম্মানে ইশা ছাত্র আন্দোলন সিলেট মহানগরীর ইফতার মাহফিল  » «   জিয়াকে মুক্তি দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে: দিলদার হোসেন সেলিম  » «   ৬০ পিস ইয়াবা সহ দুই বিক্রেতাকে আটক করেছে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ  » «   সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের ইফতার মাহফিল  » «   কমলগঞ্জে অপরাধ ও মাদকপাচার রোধে বিজিবির সভা, ইফতার মাহফিল  » «   বালাগঞ্জের পল্লীতে যুবক খুনের ঘটনায় মামলা দায়ের  » «   কমলগঞ্জে দরিদ্র চা শ্রমিক সন্তানকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এইচএসসি ভর্তিতে আর্থিক সহায়তা প্রদান  » «  

দ্বিতীয় মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন আবদুল হামিদ



জাতীয় ডেস্ক:: বাংলাদেশের ২১তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন মো. আব্দুল হামিদ। আজ সন্ধ্যায় বঙ্গভবনের দরবার হলে স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরি তাকে শপথ বাক্য পাঠ করান। এর মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট পদে দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন তিনি। শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, সংসদের বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ, মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা, সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সন্ধ্যা ৭টা ৩৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গভবনে পৌঁছালে প্রেসিডেন্ট তাকে অভ্যর্থনা জানান। বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বাধীনতার পর থেকে ১৭ জন ব্যক্তি প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

তবে মো. আব্দুল হামিদই হচ্ছেন প্রথম ব্যক্তি যিনি পরপর দুইবার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন। গত ২৫শে জানুয়ারি নির্বাচন কমিশন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। তফসিল অনুযায়ী মনোনয়ন জমা দেয়া তারিখ ছিল ৫ই ফেব্রুয়ারি এবং নির্বাচনের তারিখ ছিল ১৮ই ফেব্রুয়ারি। নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট মো.আব্দুল হামিদের নাম দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রস্তাব করা হয়।

এ নির্বাচনে আর কেউ প্রার্থী না হওয়ায় ভোটাভুটির আর প্রয়োজন হয়নি। ২০১৩ এর ২৪শে এপ্রিল আবদুল হামিদ প্রথমবারের মতো প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৭০ সালে ময়মনসিংহ-১৮ থেকে পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য, ১৯৭২ সনে গণপরিষদ সদস্য, ১৯৭৩ সালের ৭ই মার্চ অনুষ্ঠিত প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-৫ আসন থেকে, ১৯৮৬ সালের ৭ই মে অনুষ্ঠিত তৃতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচন, ১৯৯১ সালের ২৭শে ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচন, ১৯৯৬ সালের ১২ই জুন অনুষ্ঠিত সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচন এবং ২০০১ সালের ১লা অক্টোবর অনুষ্ঠিত অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০০৮ সালের ২৯শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচন হন। তিনি সপ্তম জাতীয় সংসদে ডেপুটি স্পিকার নির্বাচিত হন এবং ১৩ই জুলাই ১৯৯৬ থেকে ১০ই জুলাই ২০০১ পর্যন্ত এ পদে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে তিনি স্পিকার নির্বাচিত হন এবং ১২ই জুলাই ২০০১ থেকে ২৮শে অক্টোবর ২০০১ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। অষ্টম জাতীয় সংসদে তিনি ২০০১ সালের ১ নভেম্বর থেকে বিরোধী দলীয় উপনেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তাকে ‘স্বাধীনতা পুরস্কার-২০১৩’ প্রদান করা হয়। মো.আবদুল হামিদ বিবাহিত। তিনি তিন পুত্র ও এক কন্যার জনক।